অব্যবস্থাপনার ও সরকারী অর্থ তসরূপের অভিযোগ কুয়াকাটায় শেষ হলো তিনব্যাপী মেঘা বীচ কার্নিভাল

4

 

হৃদয় আশিষ,কুয়াকাটা থেকে : চরম অব্যবস্থাপনা আর সরকারী অর্থ তসরুফের  মধ্য দিয়ে কুয়াকাটায় শেষ হয়েছে ট্যুরিজম বোর্ড আয়োজিত তিন দিনব্যাপী মেঘা বীচ কার্নিভাল ২০১৭। শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু প্রধান অতিথি হিসেবে আজ সোমবার বিকেল চারটায় কুয়াকাটা সৈকতে এ মেঘা বীচ কার্নিভালের সমাপ্তি ঘোষনা করেন। জেলা প্রশাসক একেএম শামীমুল হক সিদ্দিকীর সভাপতিত্বে সামাপনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন একেএম আউয়াল এমপি,মাহবুবুর রহমান তালুকদার এমপি, বেসরকারী বিমান ও পর্যটন মন্ত্রনালয়ের অতিরিক্ত সচিব স্বপন কুমার সরকার, পুলিশ সুপার সৈয়দ মোসফিকুর রহমান,কুয়াকাটা পৌর মেয়র আবদুল বারেক মোল্লা প্রমুখ।

তিন দিন ব্যাপী মেগা বীচ কার্নিভাল নিয়ে স্থানীয়রা ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। একাধীক পর্যটক জানিয়েছেন তিন দিনে বীচ এলাকায় বিভিন্ন ইভেন্টের আয়োজন কররা কথা ছিলো ট্যুরিজম বোর্ডের। রবিশাল থেকে আসা পর্যটক শাহিনুর রহমান জানান,অনেক ইভেন্ট কাগজে কলমে রয়েছে। বাস্তবায়ন করা হয় নাই। ট্যুরিজম বোর্ড এবং পর্যটন কর্পোরেশনের কর্তা ব্যাক্তিরা স্বেচ্ছাচারিতা করেছেন বলে অভিযোগ করেন তিনি। পটুয়াখালী থেকে ভলিবল টিমে খেতে আসা খেলোয়ার সাউদুর রহমান জানান,তারা টিম নিয়ে এসে গতকাল বসে ছিলেন। কখন খেলা শুরু হবে তা কেউ বলতে পারে না। আবার বীচ এলাকায় এমন সময় খেলার আয়োজন করা হয়েছে যখন কোন দর্শক নেই। এটা চরম অব্যবস্থাপনার চিত্র বলে মন্তব্য করেন তিনি। ঢাকা থেকে বীচ কার্নিভাল উপলক্ষে কুয়াকাটায় বেড়াতে আসা পর্যটক দম্পতি রিমন ও মেহবুবা জানান তারা কেবল মাত্র কার্নিভালে আনন্দ করবেন বলে ঢাকা থেকে ছ’টে এসেছেন। কিন্তু আয়োজকরা একটা বস্তাপচা অনুষ্ঠান উপহার দিয়েছে। সন্ধ্যার পর স্থানীয় সাংস্কৃতিক গোষ্ঠীর অনুষ্ঠান এবং ঢাকা দু’একজন শিল্পীর রাতের অনুষ্ঠানে পরিনত হয়েছে এ কার্নিভাল। এটা কোন ভাবেই জাতীয় অনুষ্ঠান হতে পারে না বলে মন্তব্য করেন তিনি। পটুয়াখালী জেলা দূর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সাধারন সম্পাদক এইচ এম আনোয়ার হোসেন জানান,মানুষের প্রত্যাশা পূরলে ব্যর্থ হয়েছে এ কার্নিভাল। স্থানীয়রা যে প্রত্যাশা করেছিলো তার কোন ছাপ ছিলো না অনুষ্ঠান জুড়ে। সরকার অর্থ তসলুপ ছাড়া আর কিছুই হয়নি বলে জানান তিনি।

তবে এ বিষয়ে ট্যুরিজম বোর্ডের কোন কর্মকর্তার বক্তব্য পাওয়া যায়নি।