অর্ধ-লক্ষার্ধিক টাকা নিয়ে উধাও ॥ বেসরকারী প্রতিষ্ঠানের প্রতারনা ফাদেঁ  শিক্ষার্থীরা

7

 

মোঃ হাসান ঃ দশমিনা উপজেলার একার্ধিক গ্রামের শিক্ষিত  বেকার তরুনী ও অভিভাবকরা  মেঘনা  টেকনিক্যাল  ট্রেনিং  সেন্টার নামক  বেসরকারী প্রতিষ্ঠানের  লোভনীয় অফারে  প্রতারনার ফাদেঁ পড়েছে।

ভূক্তভোগীরা জানান, ঢাকা  জেলার মিরপুরের রুপনগর এলাকার  মেঘনা  টেকনিক্যাল  ট্রেনিং  সেন্টার এর নামে গছানী মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও বাংলা বাজার মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে লিপলেট বিলি করে আমিনুল ইসলাম নামের এক যুবক। ওই লিপলেটে দর্জি, ব্লক – বাটিক, মাশরুম  প্রশিক্ষন  শেষে চাকরীর সুযোগ  দেওয়ার কথা উল্লেখ করে। এতে এলাকার বিভিন্ন স্কুল, কলেজ ও মাদ্রারাসায় অধ্যায়নরত শিক্ষার্থীসহ  বেকার শিক্ষিত যুবতীরা প্রশিক্ষনের জন্য জমায়েত হয়। এর সুবাদে ওই প্রতিষ্ঠানের আমিনুল ইসলাম নামক যুবক জনপ্রতি ভর্তি ফি বাবদ ৩০টাকা এবং ওইসব  ট্রেনিং ফি বাবদ ২৮০টাকা করে দুইশতার্ধিক শিক্ষার্থীর কাছ থেকে প্রায় অর্ধলক্ষাধিক টাকা হাতিয়ে নিয়ে উধাও হয়। ওই লিটলেটে ০১৯১৬-৮৭৪০৭২ মোবাইল নম্বর দেওয়া রয়েছে। বিষয়টি জানার জন্য ওই মোবাইল নম্বরে ফোন করলে তা বন্ধ পাওয়া গেছে। ভুক্তভোগী শাহনাজ পারভীন, সাথী বেগম, ঝুমুর বেগম, নাদিয়া শারমিনসহ আরো অনেকে জানান, ওই ট্রেনিং এর হলরুম হিসেবে গছানী মাধ্যমিক বিদ্যালয ও বাংলা বাজার মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের একটি কক্ষ ব্যবহার করার জন্য যথাক্রমে ৫হাজার টাকা এবং ২টি ফ্যান দেওয়ার চুক্তি করে আমিনুল। গত ২৯আক্টোম্বর বৃহস্পতিবার বিকাল ৩টা থেকে শুক্রবার প্রাথমিক পর্যায়ের প্রশিক্ষন শুরু করার কথা ছিল। কিন্তু তার পরদিন থেকেই ওই ট্রেনিং সেন্টার কর্তৃপক্ষ উধাও হয়ে যায়। এ ব্যাপারে বাংলা বাজার মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক কাজী মোঃ আনোয়ার হোসেন বলেন, আমি ঢাকায় ছিলাম। এ ব্যাপারে আমাকে অবহিত করেনি। তবে শুক্রবার  ২দিন স্কুলের রুমে বসেছিল। আমি খবর দিলে তারা আমার সাথে দেখা না করে লাপাত্তা হয়ে যায়।