আওয়ামীলীগ নেতার বিরুদ্ধে যুব মহিলা লীগ নেত্রীর সংবাদ সম্মেলন

0

 

স্টাফ রিপোর্টারঃ পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালীতে উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক এবং ভাইস চেয়ারম্যান এনামুল ইসলাম লিটু কৃর্তক যুব মহিলা লীগের এক নেত্রীকে ধর্ষন চেষ্টার অভিযোগে দায়ের করা মামলায় লিটুর বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা জারি হওয়ায় ক্ষিপ্ত হয়ে ওই নারী নেত্রীর স্বামীকে কুপিয়ে গুরুত্বর জখম করেছে লিটু ও তার সহযোগীরা। এসব ঘটনায় লিটুকে গ্রেফতার ও বিচারে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ চেয়ে সংবাদ সম্মেলন করেছেন নির্যাতিত ওই নারী নেত্রী।

সোমবার বেলা সাড়ে ১১টায়  পটুয়াখালী প্রেসক্লাব মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলনে নির্যাতিত নারী তাসলিমা বেগম অভিযোগ করে বলেন, ‘গত ২৬ মার্চ রাতে উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এবং ভাইস চেয়ারম্যান এনামুল ইসলাম লিটু ও তার সহযোগীরা জোর পূর্বক তাকে ধর্ষনের চেস্টা চালায়। এ সময় তার ডাক চিৎকারে বাড়ির আস পাশের লোকজন এসে পড়লে লিটু বিষয়টি নিয়ে বাড়া বাড়ি না করতে হুমকি দিয়ে তার বাহিনী নিয়ে চলে যায়। এ ঘটনার পর দিন ২৭ মার্চ রাঙ্গাবালী থানায় অভিযোগ দিলেও পুলিশ মামলা  নেয়নি। পরে ২৮ মার্চ পটুয়াখালী নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে লিটু ও তার দুই সহযোগী সহ মোট তিন জনকে আসামী করে মামলা দায়ের করা হয়। আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে পিবিআই কে রিপোর্ট দাখিলের নির্দেশ দিলে তদন্ত শেষে  পিবিআই আসামীদের বিরুদ্ধে প্রতিবেদন দাখিল করলে আদালত ১৯ মে লিটু ও তার সহযোগীদের বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা জারি করে।

এ ঘটনায় ক্ষিপ্ত হয়ে ২১মে লিটু নির্যাতিত নারীর স্বামী সেলিম গাজী (৪২) কে কুপিয়ে গুরুত্বর জখম করে। এর পরে আহত অবস্থায় গলাচিপা উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভর্তি করলেও লিটু বাহিনীর হুমকির কারেন সেখানে তারা চিকিৎসা করাতে পারেনি। বর্তমানে বাধ্য হয়ে পটুয়াখালী ২৫০ শয্যা হাসপাতালে ভর্তি হয়ে চিকিৎসা নিচ্ছেন। এ ঘটনায় লিটু বাহিনীর বিরুদ্ধে রাঙ্গাবালী থানায় আরো একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে বলেও জানান ওই যুব মহিলা লীগ নেত্রী।

এ অবস্থায় লম্পট, মদখোর ও দ্শ্চুরিত্রের অধিকারী লিটুকে অনতিবিলম্বে গ্রেফতার করে ওই এলাকার নারীদের ইজ্জত রক্ষা ও লিটুকে বিচারের মুখো মুখি করতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষে কামনা করেছে ওই যুবলীগ নেত্রী তাসলিমা বেগম।