আজ কলাপাড়া মুক্ত দিবস

1

 

গোফরান পলাশ, কলাপাড়া : আজ ৬ ডিসেম্বর, মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি বিজড়িত কলাপাড়া মুক্ত দিবস । ১৯৭১’র এই দিনে কলাপাড়ার বীর সন্তানরা দেশ মাতৃকার টানে মুক্তিযুদ্ধে অংশ নিয়ে পাক সেনাদের পরাজিত করে পটুয়াখালী জেলার কলাপাড়া উপজেলাকে দখল মুক্ত করে । তাই এই দিনটি কলাপাড়ার আপামর জনসাধারনের কাছে একটি গুরুত্বপূর্ন ও স্মৃতি বিজড়িত দিন  ।

 

জানা যায়, ১৯৭১’র এই অগ্নি ঝরা দিনে কলাপাড়াকে শত্রুর কবল থেকে মুক্ত করতে কলাপাড়ার বীর সন্তান সুরেন্দ্র মোহন চৌধুরী, সাংবাদিক হাবিবুল্লাহ রানা, রেজাউল করিম বিশ্বাস, কামাল পারভেজ, নাজমুল হুদা ছালেক, আরিফুর রহমান মুকুল, সাজ্জাদুল ইসলাম বিশ্বাস, শাহ আলম তালুকদার, ক্যাপ্টেন নুরুল হুদা সহ ৫১ জন মুক্তিযোদ্ধা মুক্তিযুদ্ধে অংশ নিয়ে পাক শত্রুদের পরাজিত করে কলাপাড়াকে শত্রু মুক্ত করেন।

 

কলাপাড়া থানা আক্রমন কারী মুক্তিযোদ্ধাদের সূত্রে জানা যায়, ’পার্শ্ববর্তী থানা গলাচিপাকে ৩রা ডিসেম্বর শত্রু মুক্ত করার পর ১৯৭১’র ৪ঠা ডিসেম্বর পড়ন্ত বিকেলে আর এক যুদ্ধাবস্থার মুখোমুখি হন তারা। পটুয়াখালীর দিক থেকে একটি গানবোট সাদৃশ্য একটি জাহাজ পাকিস্তানী পতাকা উড়িয়ে গলাচিপার দিকে আসতে থাকে। এসময় নদীর পাড়ের ব্যাংকার গুলোয় আমরা ক’জন মুক্তিযোদ্ধা সতর্ক অবস্থান নেই। জাহাজটি কাছাকাছি এসেও যখন কোন রকম ফায়ার করছেনা তখন লক্ষ্য করি পাকিস্তানী পতাকা ছাড়াও ইউএন লেখা নীল রংয়ের একটি পতাকা রয়েছে। জাহাজটির নাম ছিল ভাট্রি। ৪ তারিখ রাতে মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার নুরুল হুদা ও ডেপুটি কমান্ডার হাবিবুর রহমান শওকত সিদ্ধান্ত নেন ভাট্রিকে নিয়েই পটুয়াখালী আক্রমনে যাওয়া হবে। অত:পর ৫ ডিসেম্বর রোববার শেষ বিকেলে ভাট্রি ও আরেকটি ড্রেজার বাহন নিয়ে আমরা ৫১ জন মুক্তিযোদ্ধা কলাপাড়া থানাকে দখল মুক্ত করতে গলাচিপা থেকে এসে কলাপাড়ার ইটবাড়িয়ায় অবস্থান নেই । এখান থেকে তিনটি গ্রুপে বিভক্ত হয়ে থ্রি নট থ্রি, এস,এল,আর, এল,এম,জি ও হ্যান্ড গ্রেনেড নিয়ে আক্রমন পরিচালনা করা হয়। ওই দিন প্রচন্ড প্রতিরোধের মুখে পিছু হটলেও পরের দিন কলাপাড়াকে শত্রু মুক্ত করতে সক্ষম হন মুক্তিযোদ্ধারা। কলাপাড়া থানা দখলের সময় মুক্তিযোদ্ধাদের গুলিতে রাজাকার আবদুল মন্নান মুন্সী ও মনা নিহত হয়। ৬ ডিসেম্বর সকালে উড়িয়ে দেওয়া হয় স্বাধীন বাংলাদেশের পতাকা। একই দিন সকালে পুলিশ ও রাজাকাররা তৎকালীন আ’লীগ নেতা আবুল কাসেম ও মোশারেফ হোসেন বিশ্বাসের কাছে অস্ত্রসস্ত্র হস্তান্তর করে পালিয়ে যায়।