আধা শতাংশ সরকারী জমিতে অ-বৈধ স্থাপনা করায় সংখ্যালঘু পরিবারের নামে মামলা গ্রেফতার- ১

4

আমতলী প্রতিনিধিঃ বরগুনার ‘আমতলী’র গাজীপুর বন্দরে আধা শতাংশ খাস জমিতে স্থপনা করায় গাজীপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মিল্টন কুমার ঠাকুর কে গ্রেফতার করেছেন আমতলী থানা পুলিশ । গ্রেফতার হওয়া শিক্ষক মিল্টনের পরিবার জানান , গাজীপুর বাজারে প্রায় ৮ হাজার একর সরকারী খাস জমি রয়েছে । তাতে একসনা লিজ নিয়ে দুই তলা তিন তলা ভবন করে অনেকে ব্যবসা বানিজ্য ও আবাসিক ভবন নির্মান করে বসবাস করছে। মিল্টনের শশুর ও গাজীপুর বন্দরের পূজা উৎযাপন পরিষদের সভাপতি মুকুন্দ বাবু জানান আমার জামাতা আধা শতাংশ জমিতে পাকের ঘর নির্মান শুরু করলে   ভূমি তহসিলদার আবুল খায়ের ও খলিলুর রহমান বাধা দেয় । মিল্টন তাদের কথামত কাজ করা বন্ধ রাখে । হটাৎ করে গত মঙ্গলবার বিকালে   আমতলী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. মিজানুর রহমান ও থানা ভারপ্রাপ্ত পুলিশ কর্মকর্তা পুলক চন্দ্র রায় ঘটনাস্থলে গিয়ে পাকের ঘর যে টুকু নির্মান করা হয়েছিল তা উচ্ছেদ করে দেন।

এবং তহসিলদার মো. খলিলুর রহমান বাদী হয়ে আমাকে ও আমার জামাতার নামে সরকারি কাজে বাধাদানের মামলা দেন । এ মামলায় পুলিশ আমার জামাতা কে গ্রেফতার করে বরগুনা জেল হাজাতে পাঠান। গাজীপুর বাজারের এক ব্যবসায়ী নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন গাজীপুর বাজারে প্রভাবশালীরা একসনা লিজ নিয়ে বড় বড় ইমারত , ভবন নির্মান করে ব্যবসা বানিজ্য করছে , আবার কেহ আবাসিক ভবন নির্মান করে বসবাস করলেও মাত্র আধা শতাংশ জমির জন্য জেলে যেতে হল এবং মামলা খেল একটি অ-সহায় হিন্দু পরিবার “বোঝেনতো ভাই এর পিছনে কারন কি” সরেজমিনে গাজীপুর বাজার ঘুরে দেখা যায় , গাজীপুর বাজারে সরকারী জমিতে দু-তলা তিনতলা ভবন রয়েছে । আবার কেহ বহুতল ভবন নির্মান করতেছে । এ ব্যাপারে তহসিলদার খলিলুর রহমান বলেন আমার অ-বৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ শুরু করেছি। আমতলী উপজেলা নির্বাহি অফিসার মো. মিজানুর রহমান বলেন আমারা একটি অ-বৈধ স্থপনা উচ্ছেদ করেছি । আরো আছে কিনা   আমার জানা নেই।থাকলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। সংখ্যালঘু পরিবার টি এ ব্যাপারে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য প্রশাসনের উচ্চমহলের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করছেন।