আন্তর্জাতিক যুব দিবস উৎযাপন

1
SAMSUNG CAMERA PICTURES

স্টাফ রিপোর্টারঃ “ রোড ২০৩০ থেকে : নির্মূল দারিদ্র্য এবং  টেকসই উৎপাদন ও ভোগের অর্জন” এই প্রতিপাদ্য নিয়ে পটুয়াখালীতে আন্তর্জাতিক যুব দিবস ২০১৬ উপলক্ষে “যুব নেতৃত্বই টেকসই” বিষয়ে আলোচনা সভা ও বৃক্ষরোপন কর্মসূচি পালন করা হয়েছে।

শুক্রবার সকাল ১০টায়  পটুয়াখালী যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের জেলা কার্যালয়ে সকল কর্মসূচি পালন করা হয়। সদর উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা মোঃ বদরুল আমিন খান শামিমের উপস্থাপনায়, উপ-পরিচালক মো. আজিজুর রহমানের সভাপতিত্বে সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন  জেলা প্রশাসক এ  কেএম শামিমুল হক সিদ্দিকী। অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন উপ-সহকারী পরিচালক ওবায়েদুল ইসলাম, যুব উন্নয়নের আত্মকর্মী ও ইয়ুথ লিডার মোঃ জহিরুল ইসলাম, শুকতারা মহিলা সংস্থার পরিচালক মাহফুজা ইসলাম, আদর্শ মহিলা সংস্থার পরিচালক আফরোজা আকবর প্রমুখ ।

প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক একেএম শামিমুল হক সিদ্দিকি বলেন, অর্থনৈতিক উন্নয়নে বড় অংশীদার ও শ্রমশক্তির মূল যোগানদাতা এই যুব সম্প্রদায়। তথ্য প্রযুক্তি, অভিবাসন ও দেশের তৈরী পোষাক খাতে যুব সমাজের একটা বড় অংশ কাজ করছে। অন্যদিকে, যারা স্বেচ্ছাসেবী হিসেবে সমাজের বিভিন্ন স্তরে কাজ করছেন তাদের অবদানও কোন অংশে কম নয়।  দেশ ও জাতিকে এগিয়ে নিতে তরুণদের কাছ থেকে সক্রিয় অবদান চাইলে যুববান্ধব সমাজ গঠনের দিকে গুরুত্ব  দেয়ার বিকল্প  নেই। তিনি আরও বলেন, তরুণদের চাহিদা মাফিক উন্নয়ন  কৌশল, পরিকল্পনা ও নীতিমালা একান্ত জরুরী। প্রধানমন্ত্রী, বঙ্গবন্ধু কন্যা, জননেত্রী শেখ হাসিনা ঘোষনা দেশকে মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত ও রূপকল্প ২০২১ বাস্তবায়ন করতে তরুণদের পর্যাপ্ত পেশা আগ্রহের ভিত্তিতে কারিগড়ি প্রশিক্ষিত করে তোলার পাশাপাশি প্রযুক্তিনির্ভর অর্থনীতি গড়ে তুলতে হবে এবং আত্মকর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি করতে সহজ শর্তে  লোনের ব্যবস্থা করতে হবে। জননেত্রী  শেখ হাসিনা এই বিপ্লবের সম্পূর্ণ দায়িত্ব দিয়েছেন তরুণদের হাতে। তিনি বুঝতে পেরেছেন তারুণ্যের শক্তিকে কাজে লাগিয়ে একটি ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ে তুলতে হবে। পরে জেলা প্রশাসক পটুয়াখালী যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের জেলা কার্যালয়ে নারিকেল গাছের চারা রোপন করেন।