আবুবকর ভিক্ষাবৃত্তি ছেড়ে এখন ব্যবসায়ী

3

সোলায়মান পিন্টু,কলাপাড়া প্রতিনিধিঃকলাপাড়া শহরের অনেকেরই পরিচিত মুখ উপজেলার বালিয়াতলী ইউনিয়নের বলিপাড়া গ্রামের বাসিন্দা দৃস্টি প্রতিবন্ধী আবু বকর (৪৫)। বাবা মায়ের টানাটানির সংসারে জোগান দিতে এবং দৃষ্টি শক্তি না থাকায় ২০ বছর বয়সেই নেমে পরেন ভিক্ষা করতে।

দৃষ্টি প্রতিবন্ধি আবু বকর ডান চোখে একেবারেই দেখতে পাননা আর বাম চোখে ঝাপসা ঝাপসা দেখতে পান। তাই লাঠী ভর দিয়ে এলাকার বিভিন্ন অলি-গলির বাসাবাড়ি ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে ভিক্ষা করতেন। পঁচিশ বছরের সেই  ভিক্ষাবৃত্তি ছেড়ে দিয়ে এখন সে শহরের ক্ষুদ্র একজন ব্যবসায়ী। শহরের রাস্তায় রাস্তায় পানের খিলি বিক্রি করেন থাকেন আবু বকর।

আবু বকরের ব্যবসায়ী হওয়ার পিছনে শহরের মোবাইল ব্যবসায়ী লোকমান হোসাইনের ভুমিকা ছিল প্রশংসনীয়। তার সম্মতিতেই সামান্য পুঁজি দিয়ে খিলি পান বিক্রিতে উৎসাহি করেন লোকমান। শহরের আরেক ব্যবসায়ী তাজুল ইসলাম পান ব্যবসার যাবতীয় উপকরণ দিয়ে তাকে সহযোগীতা করেন। আবু বকরের এ পরিবর্তনে অনেকেই আনন্দিত। আর যারা সচারচর পান খাননা তারও খিলি পান খেয়ে আবু বকরের দিকে  সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেন ।

ভিক্ষাবৃত্তি ছেড়ে ব্যবসায় আসার কারন জানতে চাইলে আবু বকর বলেন, ভিক্ষা করে যা  পেতাম তা দিয়ে কোন রকম সংসার চললেও বেশিরভাগ সময়ই মানুষের লাঞ্চনা  পেতাম । তাই এতদিনের পেশা ছেড়ে দিয়েছি। এখন স্ত্রী আর তিন সন্তান নিয়ে টানপোড়নে সংসার পার করলেও আমার মনে তৃপ্তির কমতি নেই। এখন তার প্রায় দেড়’শ টাকা আয় হয়। কম খেলেও এখন সে ভালই আছেন এবং সবাই তাকে ভালবাসেন বলে জানান দৃষ্টি প্রতিবন্ধি আবুবকর।