আমতলীতে পৃথক ২টি সংঘর্ষে পাঁচ নারীসহ আহত ১০

1

কে এম সোহেল,প্রতিনিধি আমতলীঃ আমতলী পৌরসভার ১ নং ওয়ার্ডে  জমির দখল নিয়ে সংঘর্ষ ও রবিবার সকাল ১০ টায় হলদিয়া ইউনিয়নের উত্তর তব্কাবুনিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ঢুকে হামলায় দপ্তরী ও তার ভাইসহ  ২টি ঘটনায় ১০ জন আহত হয়েছে । আহতদের আমতলী ও বরিশাল ভর্তি করা হয়েছে ।স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে , ১৯৮৯ সালে  চাওড়া ইউনিয়নের বৈঠাকাটা গ্রামের ছত্তার গাজী ৪০ শাতাংশ জমি পৌরসভার ১ নং ওয়ার্ডের ইদ্রিস সিকদারের কাছে  বিক্রি করেন। ২৮ বছর ধরে ওই জমি  ইদ্রিস সিকদার  ভোগ দখল করে আসছেন। রবিবার সকালে ছত্তার গাজী অর্ধ শতাধিক লোকজন নিয়ে ওই জমি দখল করে জোর  পূর্বক ঘর তোলে । খবর পেয়ে ইদ্রিস সিকদারের কন্যা শামিমা আক্তার এতে বাঁধা দেয় ।  এসময় শামিমাকে ছত্তার গাজীর লোকজন  ব্যাপক মারধোর করেন। শামিাকে রক্ষায় তার লোকজন এগিয়ে আসলে তাদেরকে মারধোর করে ছত্তার গাজীর লোকজন । এতে ৮ জন আহত হয়। আহতরা হল  জয়নাল ইমন (২৬), শামিমা আক্তার (৪৪), দেলোয়ারা বেগম (৪৫) কুমকুম (৩৮) ও মালেকা বেগমকে আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এছাড়া এনি (৩০), মেহেদী হাসান (১৮) ও রিয়াজ উদ্দিন তনুকে প্রাথমিক চিকিৎসা  দেয়া হয়েছে। অন্যদিকে রবিবার সকাল ১০টার সময় হলদিয়া ইউনিয়নের উত্তর তক্তাবুনিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ঢুকে স্থানীয় জহিরুল ইসলাম টেলিশন তালুকদার পূর্ব শক্রতার জের ধরে বিদ্যালয়ের দপ্তরী রেজাউল করিমকে মারধর করে। তাকে রক্ষার জন্য তার ভাই রিয়াজ উদ্দিন এগিয়ে গেলে তাকেও মারধর করে। আহত রিয়াজ উািদ্দনকে বরিশাল শেরই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। জহিরুল ইসলাম টেলিশন তালুকদার হামলার কথা অস্বীকার করেন।

আমতলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা  মো.শহিদ উল্যাহ বলেন প্রথম ঘটনায়  মামলা হয়েছে। দিতীয় ঘটনায় এখনো কেউ অভিযোগ দেয়নি। অভিযোগ পাওয়া গেলে তদন্ত পূর্বক আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।