আমতলীতে ফেরি  চলাচলে অনিয়ম যাত্রী দূর্ভোগ চরমে 

2

কে এম সোহেল, আমতলী  প্রতিনিধি : বরগুনা  জেলার সঙ্গে সারাদেশের যোগাযোগের একমাত্র মাধ্যম পায়রা নদীর বরগুনা পুরাকাটা-আমতলী ফেরী। এ ফেরি চলাচলে ব্যাপক অনিয়ম স্বেচ্ছাচারিতার অভিযোগ পাওয়া গেছে কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে ।  ফেরির দুটি ইঞ্জিনের একটি ইঞ্জিন সম্পূর্ণ বিকল আরেকটিও চলে না চলার মতোই। এতে প্রমত্তা পায়রার স্রোতে ফেরিটি প্রায়ই অন্যত্র ভেসে যায়। ঘণ্টার পর ঘণ্টা নদীতে আটকা পড়ে থাকে যাত্রীরা। এ সমস্যা নিয়েই ফেরিটিতে প্রতিদিন যানবাহন পারাপার করা হচ্ছে। ফলে যে কোন সময় বড় ধরনের দুর্ঘটনার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।

নির্ভরযোগ্য সূত্র জানায়, সড়ক ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের  নির্দেশে গত ৫ মাস পূর্বে এখানে একটি নতুন ফেরি দেয়া হয়। সে ফেরিটি আমতলী ঘাটে বেঁধে রেখেছেন কর্তৃপক্ষ । গত রবিবার রাত ৮ টায় ফেরি ছেড়ে যায় আমতলী ঘাট থেকে যাওয়ার পার পুরাকাটা ঘাটের কাছাকাছি থেকে মেশিন নষ্ট হবার অজুহাত দেখিয়ে পুনঃ রায় আমতলী ঘাটে ফিরে আসে। এব্যাপারে ড্রাইভার খোকনের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন মেশিন নষ্ট হয়ে যাওয়ায় ফেরি ঘাটে ভিড়াতে পারি নাই। তা হলে এ পার চলে আসলেন কিভাবে তখন কোন উত্তর না দিয়ে ফোন কেটে দেন। এরপর রাত  ১১ টা পর্যন্ত ফেরি চলাচল বন্ধ ছিল। ফেরির ইজারাদার রোকনুজ্জামান ফিরোজ আকন ও কবির ফকির জানান, প্রথমে পুরাকাটা-আমতলী নৌপথে দুটি সচল ফেরি চলাচল করলেও চার বছর আগে একটি ফেরি সম্পূর্ণ বিকল হয়ে যায়। সেটি জরাজীর্ণ অবস্থায় ঘাটে পড়েছিল। কিন্তু ফেরির যন্ত্রাংশ নষ্ট হওয়ায় দৈনিক ১শ’ লিটার তৈল এবং ১২ লিটার মবিলের ঘাটতি হয়। এতে ফেরি ইজারাদাররা নিত্যদিন প্রায় ৮Ñ১০ হাজার টাকা লোকসান দিয়ে পারাপার করছেন এসব যানবাহন ও যাত্রীদের। সড়ক ও জনপথ নির্বাহী প্রকৌশলী মুহম্মদ মনজুরুল করিম সেচ্ছারিতার করে  স্টাফদের মাধ্যমে ছলছাতুরী করে নতুন ফৈরিটি না চালিয়ে পুরাতন লক্কর ঝক্কর ফেরিটি চালায় যাতে ইজারাদার লোকসান দিয়ে স্বেচ্ছায় চলে যায় ।

নতুন ফেরিটি চালু না করার জন্য (১ নভেম্বর)  বরগুনা জর্জ কোর্টে নিবার্হী প্রকৌশলী মুহম্মদ মনজুরুল করিম কে  আসামী করে মামলা দায়ের করেন ইজারাদার রোকনুজ্জামান ফিরোজ আকন। মামলা দায়ের করার পর গভীর রাতে তড়িঘড়ি করে পুরাতন ফেরিটিতে একটি নতুন মেশিন লাগাতে দেখা যায়। নতুন ফেরিটি তিনি ঘাটে বেধেই রেখেছেন।  এ ব্যাপারে  নির্বাহী প্রকৌশলী মুহম্মদ মনজুরুল করিম এর মুঠোফোনে একাধিকবার চেষ্টা করে ও তার সাথে যোগাযোগ করা যায়নি।