আমতলীতে ভাবীর মামলায় দেবর গ্রেফতার

3

কে.এম সোহেল, আমতলী : বরগুনার আমতলীতে ভাবীকে নির্যাতন মামলায় দেবরকে গ্রেফতার করেছে   আমতলী থানা পুলিশ । ভাবী  মোসাঃ  রুনা বেগম বাদী হয়ে ১৭ ফেব্রুয়ারী বরগুনা নারী ও শিশু আদালতে মামলা দায়ের করেছেন।  মামলা সূত্রে জানা যায় মধ্যচন্দ্রা  গ্রামের দিন মজুর খোকন হাওলাদারের স্ত্রী রুনা বেগম কে  বিভিন্ন সময়    কুপ্রস্তাব দেয় দেবর সোবহান হাওলাদার   এ ঘটনা রুনা বেগম গ্রামের গন্যমান্যদের  জানায় এতে ক্ষিপ্ত হয়ে ১০ ফেব্রুয়ারী সন্ধ্যা ৭ টার সময় রুনা বেগমকে বাড়ীতে একা পেয়ে ঘরের দরজা খোলা থাকার সুযোগে ঘরের মধ্যে প্রবেশ করে ভাবী রুনা বেগম কে ধর্ষনের চেষ্টা করে ।

এ সময় রুনা বেগমে ডাকচিৎকার শুরু করলে দেবর সোবাহান হাওলাদার ভাবী রুনা বেগমের মাথায় কোপ দিয়ে পালিয়ে যায়।

এ ঘটনায় রুনা বেগম বরগুনা নারী ও শিশু আদালতে মামলা দায়ের করলে বিজ্ঞবিচারক মামলাটি আমলে নিয়ে আমতলী থানাকে এজাহার নেয়ার আদেশ প্রদান করেন।

আমতলী থানা এজাহার গ্রহন করে মামলার আসামী সোবাহান কে শুক্রবার রাতে গ্রেফতার করে শনিবার আমতলী সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে প্রেরন করেন । বিজ্ঞ বিচাররক আসামী সোবাহানের জামিন না মজœুর করে বরগুনা জেল হাজতে প্রেরন করেন।

পটুয়াখালীতে স্থানীয় সরকার শাখার প্রধান অফিস সহকারীর বিরুদ্ধে অভিযোগ দিয়েছে বাপসা

ডেস্ক রিপোর্ট : পটুয়াখালীর স্থানীয় সরকার শাখার প্রধান অফিস সহকারী মো: ফারুকুজ্জামানের বিরুদ্ধে নানা দুর্নীতির অভিযোগ এনে জেলা প্রশাসকের কাছে লিখিত অভিযোগ দিয়েছে বাংলাদেশ ইউনিয়ন পরিষদ সেক্রেটারী সমিতি (বাপসা)। গত ২৫ ফেব্রুয়ারি বাপসা নেতৃবৃন্দ সমিতির ৩৮জন সদস্যের স্বাক্ষর যুক্ত এ অভিযোগ পত্রটি জেলা প্রশাসকের দরবারে জমা দেন।

অভিযোগে তারা উল্লেখ করেন, স্থানীয় সরকার শাখার প্রধান অফিস সহকারী মো: ফারুকুজ্জামান বিভিন্ন সময়ে তাদের ফাঁদে ফেলে উৎকোচ গ্রহন, দাপ্তরিক কাজ নিয়ে তার কাছে গেলে তিনি হীন মন্তব্য ও ঔদ্ধত্যপূর্ণ আচরন, পছন্দমত ইউপিতে বদলির লোভ দেখিয়ে উৎকোচ গ্রহন, চেয়ারম্যানদের সঙ্গে আতাত, শ্রান্তি বিনোদন ভাতার চিঠি আইনি জটিলতা দেখিয়ে ফেলে রেখে প্রত্ত্যেক সচিবের কাছথেকে উৎকোচ গ্রহনের মাধ্যমে ফাইল চালু করন, ২০১৪-২০১৫ অর্থ বছরে অডিটের ভয় দেখেয়ে সচিবদের নিকট থেকে ১০ হাজার টাকা উৎকোচ গ্রহন, সচিবদের শিক্ষা ভাতা কর্তনসহ তিনি নানা ধরনের দুর্নীতির সাথে জড়িত।

বাপসা নেতৃবৃন্দ তাদের এ সমস্যা সমাধানে প্রয়োজনীয় ব্যাবস্থা নেওয়ার জন্য জেলা প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষন করেন। বিষয়টি বিবেচনার জন্য তারা বরিশাল বিভাগীয় কমিশনারের কাছেও এ অভিযোগের একটি অনুলিপি প্রেরন করেছেন।