আমতলীর গাজীপুর বন্দরে খাস জমি বিত্তবানের গ্রাসে

1

কে এম সোহেল,আমতলী প্রতিনিধিঃ বরগুনার আমতলী উপজেলার গাজীপুর বন্দরের সরকারি খাস জমি বিত্তবানের পেটে চলে গেছে। অবৈধ জায়গা দখল করে স্থায়ী ইমারত নির্মাণ চলছে। আইন প্রয়োগকারী সংস্থা নীরব ভূমিকা পালন করছে।

জানা গেছে, আমতলীর গাজীপুর বন্দর অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বাজার। এখানে সপ্তাহে দু’দিন হাট বসে। বন্দরের অকৃষি জমি রয়েছে ৮ একর। এ তথ্য উপজেলা ভূমি অফিসের। এ জমির কিছু অংশ আধা শতাংশ করে পরিবার প্রতি ভূমি অফিস একসনা বন্দোবস্ত দিয়েছে। সরেজমিনে গিয়ে দেখাগেছে, বন্দোবস্তকারীরা অনেকেই বিত্তবান। অনেক পরিবার বেনামে-স্বনামে ভূমিহীন সেজে এ জমি লিজ নিয়েছে। অনেক পরিবার পজিশন বিক্রি করে দিয়েছে। সরকারি বিধি অনুসারে একসনা বন্দোবস্ত জমিতে পাকা ইমারত নির্মাণ করতে পারে না। গাজীপুর ২৪নং মৌজার ১নং খাস খতিয়ানের বসবাসরত  গাজীপুর বাজারের ঔষধ ব্যবসায়ী  উত্তম কুমার ঠাকুর  পাকা বাথরুম টয়লেট ও নির্মান করেছেন ।  সম্প্রতি বাসভবনের সম্প্রসারনের নামে  ফ্লোর পাকা করে  একটি টিনসেট স্থাপনা নির্মান করেছেন। অপর একটি  পাকা ইমারত নির্মাণ শুরু করেছে ।  চুনাখালী ইউনিয়ন ভূমি অফিসের তহসিলদার মোঃ আবুল খায়ের বলেন  পাকা স্থাপনা  করতে নিষেধ করা হয়েছে । স্থানীয়রা নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক অনেকে জানান প্রভাবশালীরা আধাঁ শতাংশ জমির লিজ নিয়ে দখল করে আছে ৪-৫ শতাংশ।

অভিযুক্ত উত্তম  কুমার ঠাকুর  পাকা  বাথরুম নির্মান ও ফ্লোর পাকা করে  টিনসেড ঘর উত্তোলনের সত্যতা স্বীকার করেন।

এ বিষয়  আমতলী উপজেলা  সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. নাজমুল আলম বলেন এ বিষয়টি আমার জানা নেই। জেনে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। আমতলী উপজেলা নির্বাহী  অফিসার মো. মুশফিকুর রহমান বলেন  , বিষয়টি জেনে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।