আমতলীর হলদিয়া গ্রামে অঞ্জাত রোগে এক সপ্তাহে ১৫টি গরুর মৃত্যু

0

আমতলী প্রতিনিধিঃ আমতলীর হলদিয়া গ্রামে গত এক সপ্তাহে অঞ্জাত রোগে প্রায় ৭লাখ টাকা মূল্যের ১৫টি গরুর মৃত্যু হয়েছে। এক গ্রামে এত গুলো গরু মারা যাওয়ায় কৃষকরা শঙ্কিত হয়ে পড়েছে। কি কারনে গরু গুলো মারা যাচ্ছে প্রাণীসম্পদ বিভাগ নিশ্চিত করে কিছু বলতে পারছে না।

এলকাবাসী ও গরুর মালিক সূত্রে জানা গেছে, গত বৃহস্পতিবার সকাল থেকে চলতি বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা পর্যন্ত অঞ্জাত রোগে হলদিয়া গ্রামের ৮জন কৃষকের প্রায় ৭লাখ টাকা মূলের ১৫টি গরু মারা গেছে। গত বৃহস্পতিবার বাবুল চৌকিদারের একটি গরু আকস্মিক ভাবে অসুস্থ হয়ে সন্ধ্যার মধ্যেই মারা যায়। এভাবে এক সপ্তাহে তার ৬টি গরু মারা গেছে। শুক্রবার সকালে একই এলাকার ফোরকান খলিফার ১টি, শুক্রবার বিকেলে ও বৃহস্পতিবার সকালে দেলোয়ার চৌকিদারের ২টি, শনিবার সকালে কাঞ্চন প্যাদার ১টি, শনিবার বিকেলে মোছলেম প্যাদার ১টি, রবিবার রাতে খবির খলিফার ১টি, ও সোমবার সকালে  ছোবাহান প্যাদার ৩টি সহ মোট ১৫টি গরু মারা যায়। খবির খলিফা জানান, রোগে আক্রান্ত হওয়ামাত্র গুরু গুলো  ছঠফট করতে থাকে এবং এক পর্যায়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়ার ১০ থেকে ১৫মিনিটের মধ্যে মারা যায়। মুখ ও নাক দিয়ে তখন প্রচুর পরিমানে ফেনা বের হয়। বাবুল চৌকিদার কান্না জড়িত কন্ঠে জানান, এক সঙ্গে তার ৬টি গরু মারা যাওয়ায় পথে বসা ছাড়া আর কোন উপায় নেই। দেলোয়ার চৌকিদার জানান, তার ১টি গুরু মারা যাওয়ার পর আরেকটি গরু আক্রান্ত হলে আমতলী প্রাণী সম্পদ বিভাগের সহকারী ভেটেনারী মাঠ কর্মী মো: আব্দুস ছোবাহানকে নিয়ে গরুর টিকা দিয়েছি তার পরও বৃহস্পতিবার দুপুরে একটি গরু মারা গেছে। হলদিয়া গ্রামে এক সপ্তাহে ১৫টি গরুর মৃতুর পর এ রোগ মহামারি আকারে ছড়িয়ে পরার আশঙ্কায় শঙ্কিত হয়ে পড়েছে কৃষকরা। আমতলী উপজেলা প্রানী সম্পদ কর্মকর্তা মো: আলতাফ হোসেন বলেন, এক গ্রামে এত গুলো গরু মারা যাওয়ার খবর আমাকে কেউ জানায়নি। কি রোগে মারা গেছে তার আলামত পরীক্ষা না করে কিছুই বলা যাবে না। বৃহস্পতিবার খবর পেয়ে আলামত সংগ্রহের জন্য  হলদিয়া গ্রামে লোক পাঠিয়েছি।