আমতলী ও তালতলীতে  অবিরাম বর্ষনের ফলে  রাস্তাঘাট,বসতবাড়ী তলিয়ে  গেছে

0

 

কে এম সোহেল,আমতলী প্রতিনিধি ঃ  বরগুনার আমতলী তালতলীসহ গোটা উপকূল জুড়ে   শনিবার ভোর রাত থেকে টান ভারী বৃষ্টিপাতের ফলে শহর ও গ্রামাঞ্চলের নিম্ন অঞ্চল পানিতে তলিয়ে কৃত্রিম বন্যা পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে। আমতলী তালতলীর  গ্রামাঞ্চলে এই বৃষ্টিপাতের কারনে দ্রুত পানি সরে না যাওয়ায় গ্রামীন সড়ক ও মানুষের বসত বাড়ীতে পানি উঠে গেছে। এই ধরনের ভারী বৃষ্টিপাত অব্যহত থাকলে সম্প্রতিক সময় কয়েক দফা জোয়ারের পানি বৃদ্ধিতে সৃষ্ট বন্যা পরিস্থিতিতে ক্ষতিগ্রস্থ কৃষি খাতে আরও ক্ষতির আশংকা রয়েছে।

আমতলী ও তালতলীর কৃষকরা হতাশ মে, মাসের মধ্যবর্তি ঘুর্নিঝড় রোয়ানুর পর থেকে কয়েক দফা জোয়ারের অস্বাভাবিক পানি বৃদ্ধির ফলে বন্যা জনিত পরিস্থিতিতে গ্রাম অঞ্চলে ক্ষেত খামার নিমজ্জিত হয়েছে। শাক সবজি আমনের বীজতলা ক্ষতিগ্রস্থ ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।

বিভিন্ন এলাকায় দেখা দিয়েছে জলাবদ্ধতা। বিশেষ প্রয়োজন ছাড়া মানুষ ঘর থেকে বের হতে পারেনি। জরুরী দরকারে যারা বেড়িছেছে তারা পড়েছে বিপাকে। শহরের যানবাহনও ছিলো খুব কম। প্রায় দোকান পাট ছিলো বন্ধ। এতে করে জন জীবনে নেমে আসে দুর্ভোগ চরমে। এদিকে দুযোর্গপূর্ন আবহাওয়ার কারনে  পায়রা ও বিষখালী নদী উত্তাল হয়ে উঠেছে। পানির চাপ বৃদ্ধি পাওয়ায় ভেঙ্গে যাওয়া বাঁধ দিয়ে পানি প্রবেশ করে আমতলী ও তালতলীর  বিস্তৃর্ন  এলাকা প্লাবিত হয়েছে। অপর দিকে ঝড়ো বাতাসের কারনে  বিভিন্ন স্থানে গাছ উপরে পড়েছে ।

কলাপড়া আবহাওয়া অফিস সূত্রে জানা যায়  লঘু চাপের কারনে সকাল থেকে  ২৪৮ মিলিমিটার বৃষ্টি পাত হয়েছে। বাতাসের গতি বেগ ঘন্টায় ৩০ থেকে ৪০ কিলোমিটার বেগে বইছে।