ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ভিজিএফ চাল আত্মসাতের অভিযোগ

1

গোফরান পলাশ, কলাপাড়া প্রতিনিধি: পটুয়াখালীর কলাপাড়া উপজেলার চাকামইয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হুমায়ুন কবির কেরামতের বিরুদ্ধে ঈদের বিশেষ ভিজিএফ ও ভিজিডির চাল আত্মসাতের অভিযোগ করলেন একই ইউনিয়নের আট নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য আঃ হাকিম তালুকদার। তিনি লিখিত অভিযোগে জানান, ঈদের বিশেষ ভিজিএফএর বরাদ্দকৃত ৯০ টন চালের ৬০ টন বিতরন করেছেন। তাও ১৪-১৫ কেজি করে। এছাড়া ১৫ টন দেয়া হয়েছে ভুয়া নাম দেখিয়ে যা বিতরনের মাস্টার রোল তদন্ত করলে পাওয়া যাবে। আর বাকি ১৫ টন চাল বিক্রির জন্য খাদ্যগুদামে রাখা হয়েছে। যা স্টক চেক করলে পাওয়া যাবে। ১৮ জুলাই এ চাল বিতরন কার্যক্রম শেষ করা হয়েছে। অভিযোগে আরও বলা হয়েছে, ভিজিডির দুই মাসের চালের পরিবর্তে এক মাসের চাল বিতরন করা হয়েছে। এসব চাল উদ্ধার করে দরিদ্র মানুষকে যথাযথভাবে বিতরনের জন্য প্রশাসনের উর্ধ্বতন মহলে তিনি আবেদন করেছেন।

 

ইউপি চেয়ারম্যান মো: হুমায়ুন কবির জানান, সমস্ত চাল যথাযথভাবে বিতরন করা হয়েছে। কারন একজন তদারকি কর্মকর্তা এবং ইউনিয়নের সচিব উপস্থিত থেকে চাল বিতরন করেছেন। আর ওজনে কিছুটা কম দেয়ার জন্য তিনি দাবি করেন, গোডাউন থেকে প্রতি বস্তায় দুই থেকে আড়াই কেজি চাল কম দেয়া হয়। পরিবহন বিল দেয়া হয় না। এসমস্ত কারনে একটু সমস্যা হয়। চাল আত্মসাতের অভিযোগ সম্পুর্ণভাবে মিথ্যা বলে তিনি দাবি করেন।

 

ইউপি সচিব রাশেদ নিজাম জানান, চাল আত্মসাতের অভিযোগ ঠিক নয়।

 

খাদ্য গুদাম কর্মকর্তা আব্দুল জলিল জানান, চাকামইয়া ইউনিয়নের সমস্ত চাল ডেলিভারি দেয়া হয়েছে।