ইউপি নির্বাচনে বাউফলে ৩টি ইউনিয়নে সংর্ঘষ, হামলা ভাংচুর

3

ডেক্স রিপোর্টঃ পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলার ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে তিন ইউনিয়নে গতকাল ১৯মার্চ  শনিবার চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংর্ঘষ, হামলা, ভাংচুর এবং লুটপাটের ঘটনা ঘটেছে। তিনটি ইউনিয়নেই বহিরাগত  লোকজন ওই সহিংস ঘটনা ঘটিয়েছে বলে স্থানীয় সূত্রে জানাগেছে।

গতকাল শনিবার বেলা ১১টায় নওমালা ইউনিয়নে বটকাজল এলাকায় আওয়ামী লীগ মনোনিত নৌকা মার্কা প্রার্থী কামাল হোসেন বিশ্বাস এর লোকজন স্বতন্ত্র (আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী) শাহাজাদা হাওলাদারের তিন সমর্থক মন্নান মৃধা, কুডু মৃধা ও মোতাহার মৃধার বসতঘরে হামলা চালিয়ে ভাংচুর ও লুটপাট করে।

দুপুর ১২টায় ধূলিয়া ইউনিয়নের হাইস্কুল এলাকায় বিএনপি মনোনিত প্রার্থী আব্দুল জব্বার সমার্থকদের সাথে আওয়ামী লীগ মনোনিত প্রার্থী আনিচুর রহমান হাওলাদার (আব্দুর রব) সমর্থকদের মধ্যে সংর্ঘষ হয়েছে। ওই ঘটনায় ১০জন আহত হয়েছে। হামলায় স্বপন নামের একজনকে গুরুত্বর আহতাবস্থায় বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

শনিবার  দুপুরে ওই ইউনিয়নের চর ওয়াডেল খানকা চন্দ্রদ্বীপ ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ মনোনিত নৌকা মার্কা প্রার্থী আমির আলী হওলাদারের লোকজন স্বতন্ত্র (আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী প্রার্থী) এনামুল হক (আলকাস মোল্লা) সমর্থকদের ওপর হামলা চালায়। হামলায় ৯জন আহত হয়েছে। এদের মধ্যে গুরুত্বর চারজন আল আমিন, নিজাম প্যাদ্যা, মো. আব্দুল, কাশেম দর্জী ও জামাল হোসেনকে বাউফল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। পরর্বতীতে পুলিশ এসব এলাকার পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে নিয়েছে।

এদিকে  কেশবপুর ইউনিয়নের স্বতন্ত্র (আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী) প্রার্থী আসাদুল হক জুয়েল অভিযোগ করেন, শুক্রবার রাতে আওয়ামী লীগ মনোনিত প্রার্থী লাবলু হাওলাদার ও তাঁর  লোকজন বাড়িতে গিয়ে ভয়ভীতি দেখায়। একই সাথে নির্বাচনের আগে এলাকা ছেড়ে চলে যাওয়ার জন্য হুমকি দেয়।