এনজিওর ক্যাশিয়ারকে মারধর টাকা লুট, থানায় অভিযোগ

6

আমতলী প্রতিনিধি ঃ বেসরকারি সংস্থা  স্যোসাল  ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডোশন (ঝউঋ)এর  গ্রাম সমিতির ক্যাশিয়ার হালিমা বেগমকে মারধর করে দেড় লক্ষ টাকা লুট করে নিয়েছে একই সমিতির সভাপতি শাহিনুর বেগমের স্বামী বারেক তালুকদার। ঘটনাটি ঘটেছে বুধবার সন্ধ্যায় উপজেলার পঁচাকোড়ালিয়া ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের চান্দখালী গ্রামে।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, বেসরকারি সংস্থা  স্যোসাল  ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডোশন (ঝউঋ) উপজেলার ১৪নং কড়ইবাড়িয়া ক্লাস্টার আফিসের অধীনে পঁচাকোড়ালিয়া ইউনিয়নের চাঁন্দখালী গ্রাম সমিতির সভাপতি ও ঐ সমিতির অধীনস্থ যুবদলের সদস্য শাহিনুর  বেগম এবং তার বিবাহিত কন্যা লাইজু আক্তারের নামে প্রায় ৭ মাস আগে নিরানব্বই হাজার টাকা ঋণ  উত্তোলন করেন। ঋণ উত্তোলনের পর মাত্র ১হাজার টাকা কিস্তি দেয়ার পর আর কোন টাকা পরিশোধ করেনি। আজ দিবে কাল দিবে বলে ওয়াদা করে আসতেছে। ঐ গ্রাম সমিতির ক্যাশিয়ার হালিমা বেগম কিস্তির টাকার জন্য চাপ দিলে তার প্রতি ক্ষিপ্ত হয় শাহিনুর। হালিমা উপায়ান্ত না পেয়ে অফিসে খবর দিলে এসডিএফের সিএফ মাহমুদ হাসান ওইদিন বিকেলে ঘটনাস্থলে আসেন। এদিকে শাহিনুরের স্বামী বারেক তালুকদার এসে সিএফ মাহমুদ হাসানকে গালাগালি করে ঘন্টা খানেক অবরুদ্ধ করে রাখে। মাহমুদ হাসান   কৌশলে আটক অবস্থা থেকে মুক্ত হয়ে অফিসে চলে আসে। সন্ধ্যা ৭ টার দিকে শাহিনুর, স্বামী বারেক তালুকদার ও পুত্র আল-আমীন ক্ষিপ্ত হয়ে হালিমার বাড়ী গিয়ে বাকবিতন্ডা করে। এক পর্যায় শাহিনুর হঠাৎ হালিমাকে বেধরক মারধর করে এবং তার স্বামী বারেক তালুকদার ও পুত্র আল-আমীন হালিমার ঘরের দরজা ভেঙ্গে ভিতরে প্রবেশ করে আলমীরার মধ্যে রাখা সমিতির টাকাসহ দেড় লক্ষ টাকা লুট করে নিয়ে যায়।

সংস্থার সিএফ মাহমুদ হাসান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, আমাকে অবরুদ্ধ করে রাখার থানায় এসে ঘটনা জানিয়েছি। পুলিশ রাতেই ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে।

তালতলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বাবুল আখতার জানান, ঘটনা শোনার পরপরই পুলিশ পাঠিয়েছি। তদন্ত পুর্বক ব্যবস্থা নেয়া হবে।