জেলা পরিষদ নির্বাচন খান মোশারফ হোসেন পটুয়াখালী জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান

5

 

স্টাফ রিপোর্টারঃ ২৮ ডিসেম্বর বুধবার অনুষ্ঠিত পটুয়াখালী জেলা পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামীলীগ মনোনিত প্রার্থী সাবেক জেলা পরিষদ প্রশাসক আলহাজ¦ খান মোশারফ হোসেন আনারস প্রতীক নিয়ে ২য় বার জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি পেয়েছেন ৯৩০ ভোট। তার নিকটতম একমাত্র প্রতিদ্বন্দী  প্রার্থী আওয়ামীলীগ’র জাহাঙ্গীর হোসেন পেয়েছেন ৭৬ ভোট।এছাড়া ১৫টি সাধারন ওয়ার্ড ও ৫টি সংরক্ষিত ওয়ার্ড সদস্যপদে নির্বাচিত হয়েছেন,

১নং ওয়ার্ডে মির্জাগঞ্জে সাধারণ সদস্যপদে চার জন প্রতিদ্বন্ধিতা করেন। নির্বাচনে উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদকের নিকট বিপুল ভোটে হেরে গেলেন উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমান যুগ্ন আহ্বায়ক অধ্যাপক মোঃ ইউনুচ আলী সরদার। প্রাপ্ত ভোট সংখ্যা ছিল ৮১ ভোটের মধ্যে মোঃ সফিকুল ইসলাম মহসিন মৃধা (টিউবওয়েল) ৪৭ ভোট, মোঃ নাসির উদ্দিন হাওলাদার (তালা) ১৯ ভোট, মোঃ আবু বেপারী (হাতি) ৭ ভোট এবং উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমান যুগ্ন আহ্বায়ক অধ্যাপক মোঃ ইউনুচ আলী সরদার (বৈদ্যুতিক পাখা) ৬ ভোট।

পটুয়াখালী সদর ২নং ওয়ার্ডে এ্যাড.উজ্জ্বল চন্দ্র বসু হাতি প্রতীক নিয়ে ১৯ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছে। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী মোঃ সুলতান আহমেদ সিলিংফ্যান প্রতীকে ১৮ ভোট পেয়েছেন। ৩নং ওয়ার্ডে মোঃ সহিদুল ইসলাম (শহিদ মৃধা) হাতি প্রতীক নিয়ে ৩৯ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছে। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী ইঞ্জিঃ মোঃ জামাল হোসেন অটোরিকশা প্রতীকে ১৫ ভোট পেয়েছেন।

পটুয়াখালী-দুমকি ৪নং ওয়ার্ডে সৈয়দ ফজলুল হক অটোরিক্সা প্রতীক নিয়ে ৪১ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছে। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী মোঃ মিজানুর রহমান তালা প্রতীকে ২২ ভোট পেয়েছেন।

পটুয়াখালী-বাউফল ৫নং ওয়ার্ডে মোঃ জহির উদ্দিন বাবর টিউবয়েল প্রতীক নিয়ে ৬৫ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছে। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী মোঃ জসিম উদ্দিন তালা প্রতীকে ১৫ ভোট পেয়েছেন।

পটুয়াখালী-বাউফল ৬নং ওয়ার্ডে মোঃ হারুন আর রশীদ তালা প্রতীক নিয়ে ৬৫ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছে। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী এসএম রেজাউল করিম কোন ভোট পাননি।

পটুয়াখালী-বাউফল ৭নং ওয়ার্ডে মোঃ বশিরুল আলম তালা প্রতীক নিয়ে ৩৪ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছে। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেন টিউবয়েল প্রতীকে ৩১ ভোট পেয়েছেন।

পটুয়াখালী-দশমিনা ৮নং ওয়ার্ডে মোঃ জাকির হোসেন ভুট্টো তালা প্রতীক নিয়ে ৩০ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছে। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী উত্তম কুমার কর্মকার হাতি প্রতীকে ২২ ভোট পেয়েছেন।

৯নং ওয়ার্ডে মোঃ মিজানুর রহমান তালা প্রতীক নিয়ে ৪৪ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছে। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী মোঃ ফখরুল ইসলাম টিউবয়েল প্রতীকে ১২ ভোট পেয়েছেন।

১০নং ওয়ার্ডে মোঃ ইউসুফ তালা প্রতীক নিয়ে ২৮ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছে। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী মোঃ আসাদ টিউবয়েল প্রতীকে ২৩ ভোট পেয়েছেন।

১১নং ওয়ার্ডে গোলাম মোস্তফা টিটু তালা প্রতীক নিয়ে ৩৩ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছে। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী মোঃ ফিরোজ আলম অটোরিকশা প্রতীকে ২৫ ভোট পেয়েছেন।

পটুয়াখালী-কলাপাড়া ১২ নং ওয়ার্ডে সদস্য পদে মো: মোশাররফ হোসেন মৃধা তালা প্রতীকে ৬৫ ভোটের মধ্যে ৩৪ ভোট পেয়ে সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি নিপু তালুকদার টিউবয়েল প্রতীকে পেয়েছেন ২১ ভোট।

পটুয়াখালী-কলাপাড়া ১৩ নং ওয়ার্ডে মো: ফিরোজ সিকদার তালা প্রতীকে ৬৬ ভোটের মধ্যে ৪৬ ভোট পেয়ে সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি আ: মন্নান খান আটো রিক্সা প্রতীকে পেয়েছেন ১৭ ভোট।

পটুয়াখালী-কলাপাড়া ১৪ নং ওয়ার্ডে মো: আসলাম হাওলাদার তালা প্রতীকে ৭২ ভোটের মধ্যে ৩৩ ভোট পেয়ে সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি আবদুল মালেক আকন আটো রিক্সা প্রতীকে পেয়েছেন ২৩ ভোট।

১৫নং ওয়ার্ডে একে সামসুদ্দিন হাতি প্রতীক নিয়ে ২২ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছে। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী মোঃ মোঃ কামরুল ইসলাম তালা প্রতীকে ০৫ ভোট পেয়েছেন।

পটুয়াখালী সদর-মির্জাগঞ্জ ১নং সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে সালমা জাহান ফুটবল প্রতীক নিয়ে ১২১ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছে। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী মোসাঃ নিলুফা ইয়াসমিন দোয়াত কলম  প্রতীকে ৮৪ ভোট পেয়েছেন। ২নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত আসনে রুনিয়া বেগম বিনা প্রতিদন্ধিতায় নির্বাচিত হন।দশমিনা ৩নং সংরক্ষিত সদস্য পদে  আসনে কাজী লিপি হরিণ প্রতীক নিয়ে ৭৫ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছে। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী মোসাঃ নাসরিন ফুটবল  প্রতীকে ৪৫ ভোট পেয়েছেন। ৪নং সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে ইসরাত জাহান টেবিল ঘড়ি প্রতীক নিয়ে ১১৫ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছে। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী মোসাঃ রাশিদা ফুটবল  প্রতীকে ৭৮ ভোট পেয়েছেন। ৫নং সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে প্রীতি হায়দার ফুটবল প্রতীকে ২০৫ ভোটের মধ্যে ১২৩ ভোট পেয়ে সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি লাইজু হেলেন লাকী টেবিল ঘড়ি মার্কায় পেয়েছেন ৮২ ভোট।

প্রকাশ পটুয়াখালী জেলায় ৭৫টি ইউনিয়ন ও ৫টি পৌরসভায় ১০৩০ জন ভোটার সদস্য রয়েছে বলে জেলা সহকারী রিটার্নিং অফিসার নাজমুল কবীর জানান। বাতিল হয়েছে ৯টি  ভোট ।