কলাপাড়ায় শৈবাল’র সন্ধান

6

pic-4 copyকলাপাড়া প্রতিনিধি : পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় এই সর্বপ্রথম জলজ উদ্ভিদ শৈবালের সন্ধান পাওয়া গেছে। উপজেলা মৎস্য গবেষণা ইনষ্টিটিউট খেপুপাড়া নদী উপকেন্দ্রর বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তারা রামনাবাধ, গঙ্গামতি, সোনাতলা, আন্ধারমানিক, চারিপাড়া ও শিববাড়ীয়া নদী এলাকা পরিদর্শনকালে প্রচুর পরিমান সামুদ্রিক শৈবাল দেখতে পান। ওই শৈবালের নমুনা সংগ্রহ করে জাত চিহ্নিত করনের জন্য বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তারা কোরিয়াতে পাঠানোর উদ্দ্যোগ নেন বলে জানা গেছে।

মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটের সূত্রে জানা গেছে, বাংলাদেশে ১৪০ ধরনের সামুদ্রিক শৈবাল জন্ম গ্রহন করে। কক্সবাজার, সেন্টমার্টেন, টেকনাফ, বাশখালী, মহেশখালী সাগর ও নদী মোহনায় আশপাশ এলাকায় পাথরে শৈবাল জন্মায়। কিন্তু ব্যতিক্রম হচ্ছে কুয়াকাটার সংলগ্ন বঙ্গোপসাগর ও নদী মোহনায় কোন ধরনের পাথর নেই। এর পরেও এখানে জোয়ার ভাটার স্থান চারিপাড়া, হাজীপুর, বালিয়াতলী এলাকায় এ শৈবালের সন্ধান পাওয়া যায়। স্থানীয় ভাষায় ওই শৈবালের নাম ‘সুস-নুইন্না’। জলজ উদ্ভিদ শৈবাল পানি সমৃদ্ধ হওয়াতে শীতের সময় বেশী জন্মায় । গরমের সময় এ শৈবাল পানিতে বিলিন হয়ে যায় বলে গবেষকরা জানিয়েছেন।

বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউট খেপুপাড়া নদী উপকেন্দ্রের উর্দ্ধতন বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা মোহাম্মদ আশরাফুল হক জানান, এ শৈবাল কোন জাতের তা এখন বলা যাচ্ছেনা। তবে শৈবালের নমুনা কোরিয়াতে পাঠানোর উদ্দ্যোগ নেয়া হয়েছে। ইতোমধ্যে উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সাথে যোগাযোগ করা হয়েছে বলে তিনি জানান।