কলাপাড়া পৌর নির্বাচন ঘুষের বিনিময়ে মনোনয়ন চুড়ান্ত করার অভিযোগ

1

PIC-2

চিনময় কর্মকার : পটুয়াখালীর কলাপাড়া পৌর নির্বাচনে ঘুষের বিনিময়ে মেয়র প্রার্থীর মনোনয়ন চুড়ান্ত করার অভিযোগ উঠেছে। দলীয় নেতারা অভিযোগ করেছেন কলাপাড়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি সংসদ সদস্য মাহাবুবুর রহমান তালুকদার মোটা অংকের অর্থের বিনিময়ে মেয়র প্রার্থী চুড়ান্ত করতে যাচ্ছেন।

রবিবার সকালে কলাপাড়া পৌরসভায় আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রার্থীদের সাক্ষাৎকার গ্রহনের পর কলাপাড়া প্রেসক্লাবে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে পৌর আ’লীগ সভাপতি বিপুল হাওলাদার, সিনিয়র সহ-সভাপতি দিদার উদ্দীন আহমেদ তালুকদার মাছুম ব্যাপারী, কৃষক লীগ নেতা সৈয়দ আখতারুজ্জামান কোক্কা ও উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগ সভাপতি ফিরোজ সিকদার এ অভিযোগ করেন। লিখিত বক্তব্যে তারা বলেন, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের সভায় প্রার্থী নির্বাচনের প্রক্রিয়া চুড়ান্ত করা হয়। সেক্ষেত্রে জেলা আওয়ামীলীগ, উপজেলা আ.লীগ ও পৌর আ.লীগের সভাপতি ও সাধারন সম্পাদকের যৌথ সভায় মনোনয়ন প্রক্রিয়া চুড়ান্ত করার বিধান ঠিক করে দেয় কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ। কেন্দ্রীয় এ সিদ্ধান্তকে উপেক্ষা করে পটুয়াখালী-৪ আসনের সংসদ সদস্য মাহাবুবুর রহমান তালুকদার ২৮ নভেম্বর থেকে কেন্দ্র নির্দেশিত প্রক্রিয়া বাস্তবায়নে নাটকীয়তার আশ্রয় নিচ্ছেন। ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড পর্যায়ের সভাপতি ও সম্পাদকদের ভোটিং প্রক্রিয়া নিয়েও তারা বিভিন্ন অভিযোগ করেন। তারা বলেন ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড পর্যায়ের সভাপতি ও সম্পাদকদের দলীয় কার্যালয়ে ডেকে দরজা বন্ধ করে কাগজ কলমে নাম ও পদবী লিখিয়ে তার পছন্দের প্রর্থী রাকিবুল আহসানের পক্ষে ভোট প্রদানে নির্দেশ দেন। এ কাজটি করা হয় ফরম বিক্রির আগেই। বর্তমান মেয়র ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এসএম রাকিবুল আহসানকে মনোনীত করতে এসব প্রক্রিয়া করা হয়েছে বলে দাবি করেন তারা। সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তারা বলেন রাকিবুল আহসানকে দলীয় মনোনয়ন দিতে বিপুল পরিমান অর্থের লেনদেনের বিষয়টি কলাপড়ার সর্বত্র এখন আলোচনা কেন্দ্র বিন্দুতে পরিনত হয়েছে।

 

এ বিষয়ে মনোনয়ন বোর্ডের সদস্য আলহাজ মাহবুবুর রহমান এমপি সাংবাদিকদের বলেন, আমি মনোনয়ন দেয়ার কেউ না। কেন্দ্রের নির্দেশনা মতে জেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দসহ মনোনয়ন বোর্ডের সঙ্গে কাজ করেছি। মনোনয়ন চুড়ান্ত করবেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী। কেন্দ্রের সিদ্ধান্তই চুড়ান্ত।

 

অপরদিকে কুয়াকাটা পৌরসভার মেয়র পদের মনোনয়ন চুড়ান্ত করার জন্য প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করছেন আরেক মনোনয়ন প্রত্যাশী ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মাহমুদুল আলম টিটো। এদিকে আওয়ামী লীগের মধ্যে মনোনয়ন নিয়ে বিরোধকে ঘিরে বিএনপি ও জাপা (এ) সম্ভাব্য মেয়র প্রার্থী ও সমর্থকরা কিছুটা উচ্ছ্বসিত রয়েছেন।