কালভার্টের এ্যাপ্রোসের মাটি ভরাটের কাজ সেচ্ছা শ্রমে করছে দশমিনার ৬ শিশু

1

 

মামুন তানভীর দশমিনা প্রতিনিধিঃ স্কুল বন্ধ। সামনে দুর্গা পূজা। কালভার্টের দু’পাশের এ্যাপ্রোসের নেই মাটি। কালভার্টের ওপর ওঠা নামার সময় মাঝে মধ্যে ঘটে দুর্ঘটনা। আর দুর্ঘটনায় যাত্রীদের হাত,পা ভেঙ্গে দীর্ঘদিন থাকতে হয় বিছানায়। আবার অনেকে পা হারিয়ে হয়ে যায় পঙ্গু। গাড়িচালক ও যাত্রীদের কালভার্ট দিয়ে চলাচলে আর যেন সমস্যায় না পড়তে হয়। সেই দায়িত্ববোধ থেকে এগিয়ে এসেছে পটুয়াখালীর দশমিনা উপজেলা সদরের ১ নং ওয়ার্ডের ৬ শিশু। এসব শিশুদের মধ্যে ১ জনের বিদ্যালয়ে যাওয়ার বয়স হয়নি। অবশিষ্ট শিশুদের মধ্যে ১ জন প্রথম শ্রেনীর, ২ জন তৃতীয় ও ১ জন ৪র্থ শ্রেনীর ছাত্র। শুক্রবার স্কুল বন্ধ পেয়ে উপজেলা সদরে দশমিনা-সৈয়দ জাফর সড়কে গার্লস স্কুলের দক্ষিন পাশে অবস্থিত কালভার্টের দু’পাশের এ্যাপ্রোসেরসেচ্ছা শ্রমে মাটি ভরাটের কাজ করছে, ফারহান,রিফাত,ফারদিন,সাকিব,মামুন ও রাকিবসহ ৬ শিশু। এ সব শিশুরা বলেন, এই কালভার্টের ওপর উঠতে গিয়ে গাড়ী পড়ে যায়, অনেক মানুষের হাত,পা ভেঙ্গে যায়। কেউ মাটির ভরাট নাই। তাই ওরা স্কুল বন্ধ পেয়ে সেই কাজটি করেছে বলে জানায়। এ কাজ করায় অনেকে তাদেরকে ধন্যবাদ জানিয়েছে, এতে ওদের আনন্দ লাগে বলে জানান।