কালের বিবর্তনে হারিয়ে যাচ্ছে খেজুর গাছ              কলাপাড়ায় খেজুর রস সংগ্রহ করতে ব্যস্ত গাছিরা

2
SAMSUNG CAMERA PICTURES

 

সোলায়মান পিন্টু,কলাপাড়া প্রতিনিধিঃ পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় খেজুর গাছের রস সংগ্রহে এখন ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছে গাছিরা। উপকূলীয় এ এলাকার কিছু গাছিরা প্রতি বছর শীত মৌসুমে খেজুরের রস ও গুর বিক্রি করে বিপুল অংকের টাকা আয় করত। খেজুর রস দিয়ে গ্রামীন জনপদে পিঠা ও পায়েস তৈরির প্রচলন থাকলেও কালের বিবর্তনে এই গাছ বিলুপ্ত হতে বসেছে। ফলে এ উপজেলায় শীতকালীন খেজুর গাছের রস এখন দুঃস্প্রাপ্য হয়ে পড়েছে।

উপজেলার কিছু কিছু এলাকায় খেজুর গাছ থাকলেও বছরে একবার তা থেকে রস সংগ্রহ করা হয়। ফলে গাছটি রোপনের প্রতি লোকজনের আগ্রহ কমে গেছে। এছাড়া  সঠিকভাবে পরিচর্যা না করা ও গাছ কাটায় পদ্ধতিগত ভুলের কারনে প্রতি বছর হাজার হাজার খেজুর গাছ মারা যাচ্ছে। এক শ্রেনীর অসাধু ব্যবসায়ীরা ইট ভাটায় জ্বালানী কাঠ হিসেবে খেজুর গাছ ব্যবহার করার কারনে দেদারচ্ছে কেটে ফেলছে। প্রতি বছরের মতো এ বছরও শীত পড়ার শুরুতেই উপজেলার পোশাদার খেজুর গাছিরা গাছ কাটা শুরু করেছে। ইতোমধ্যে ওইসব গাছিরা সকাল- বিকেল দুই বেলা রস সংগ্রহ করছেন।

সরেজমিনে দেখা গেছে, উপজেলার লালুয়া ইউনিয়নের চান্দুপাড়া গ্রামের রহমান মিয়া নিজের জমিতে প্রাকৃতিক ভাবে জন্মানো খেজুর গাছ থেকে রস সংগ্রহ করছেন। এসময় তার সাথে আলাপ করলে তিনি বলেন, এ বছর শীত শুরু হওয়ার সাথে সাথে প্রায় ২০ টি খেজুর গাছ কেটেছি। এ থেকে প্রতিদিন ১/২ কলস রস সংগ্রহ করি। তা দিয়ে গুড় তৈরী করে স্থানীয় বাজারে বিক্রি করি। তার মতে, খেজুর গাছ জ্বালানী কাঠ হিসেবে ব্যবহার বন্ধ না হলে এ এলাকা থেকে এক সময় এ গাছ হারিয়ে যাবে।