কুয়াকাটায় ইলিশের পেটে ইলিশ রেস্তোরাঁ

4

 

pic-3

কুয়াকাটা প্রতিনিধি : পর্যটন কেন্দ্র কুয়াকাটায় ভ্রমণ পিপাসুদের আনন্দ দানের জন্য বেসরকারি মালিকানায়  নির্মাণ করা হয়েছে ইলিশ পার্ক। এলজিইডি বাংলো সংলগ্ন পার্কটি থার্টি ফার্স্ট নাইটে (৩১ ডিসেম্বর) আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনের মধ্য দিয়ে দর্শনার্থীদের জন্য খুলে দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন কর্তৃপক্ষ।

 

ইলিশ পার্কের প্রধাণ আকর্ষন হিসেবে রয়েছে প্রায় ৭০ ফুঠ লম্বা কৃত্তিম ইলিশ যার পেটের ভিতরে বসে দর্শনার্থীরা উপভোগ করতে পারবেন ইলিশের স্বাদ। এখানে স্থাপন করা হয়েছে বাঘ, সিংহ, হরিণ, কুমির, বক, মদনটেক, কচ্ছপ, জিরাফসহ নানা প্রজাতির বন্য প্রাণীর ভাস্কর্য। পার্কে মূল ফটকের পাশেই রাখা হয়েছে কুয়াকাটার কৃষ্টি কালচার, আদীবাসী রাখাইনদের বৈচিত্রময় জীবন জীবিকার ফটো গ্যালারি। সমগ্র পার্কের চারদিকের কৃত্রিম লেকে  রয়েছে নানা প্রজাতির সামুদ্রিক দেশী ও বিদেশী মাছ। এছাড়া এখানে দেখা মিলবে তুর্কি মোরগ, খরগোশ, কবুতরসহ বিভিন্ন প্রজাতির পশু-পাখির সাথে। ৩৩ শতক জমিতে নির্মিত পার্কটি সাজানো হয়েছে বিভিন্ন প্রকারের ফুল ও ফলের গাছ দিয়ে। বাঁশ ও ছনের ঘরে বসে মনোরম পরিবেশে খাদ্য গ্রহন করার সুযোগ রয়েছে দর্শনার্থীদের। পাশাপাশি বিনোদনের সুযোগ রয়েছে পার্কে। ইতোমধ্যে স্থানীয় স্কুল কলেজের পড়–য়া শিক্ষার্থীরা ইলিশ পার্ক ও রেঁস্তোরা দেখার জন্য ভীড় করছে প্রতিনিয়ত।

স্থানীয় বাসিন্দা কে এম জহির বলেন, ভ্রমনে আসা পর্যটকদের জন্য বাড়তি বিনোদনের সুযোগ রয়েছে এখানে। এরকম আরও বিনোদন কেন্দ্র নির্মাণ করা হলে দিন দিন পর্যটকদের সংখ্যা বৃদ্ধি পাবে।

 

এ ব্যাপারে কথা হয় ইলিশ পার্কের ব্যবস্থাপনা পরিচালক রুমান ইমতিয়াজ তুষার’র সাথে। তিনি জানান, কুয়াকাটায় আগত পর্যটকদের বিনোদনের জন্য পার্ক নির্মাণ করা হয়েছে। ইলিশ পার্কের ইলিশ ক্যাফেতে পর্যটকদের জন্য থাকবে ইলিশের সব রকমের মজাদার খাবার। এখানে সামুদ্রিক মাছের ফ্রাইসহ থাকবে বারবিকিউ। এছাড়াও পিকনিক, কনফারেন্স, কনসার্ট, বিয়েসহ যে কোন অনুষ্ঠানের জন্য পার্কটি ভাড়া নেয়ারও সুযোগ রয়েছে। # # #