কুয়াকাটায় নির্বাচনী প্রচারনায় বাঁধা দানের অভিযোগ

2

 

pic-1

কুয়াকাটা প্রতিনিধি : কুয়াকাটা পৌর নির্বাচনে প্রচারনায় বাঁধা দানের অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন করেছেন জাপা (এরশাদ) মনোনিত মেয়র প্রার্থী মোঃ আনোয়ার হাওলাদার।

বৃহস্পতিবার সকালে কুয়াকাটা প্রেসক্লাবে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে তিনি এ অভিযোগ করেছেন। এসময় তিনি বলেন, ‘জনগণের সাথে দেখা করতে গেলে আ’লীগ মনোনিত প্রাথী আঃ বারেক মোল্লার ছেলে মাসুদ মোল্লা ও পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি মজিবুর রহমান কতিপয় বহিরাগত সন্ত্রাসীদের নিয়ে গাল মন্দ ও হুমকি দিয়েছ। তারা বলেছে, আমার ব্যবহৃত মোটর সাইকেলটি পুড়িয়ে দিবে, এমনকি হাত পা ভেঙ্গে দেবার কথা বলেছে।’ মেয়র প্রার্থী আনোয়ার বলেন, ‘এর পর থেকে আমি ও আমার কোন নেতা কর্মী নির্বাচনী প্রচারে মাঠে নামতে পারব কিনা এ নিয়ে সন্দেহ রয়েছে।’

জাপা মনোনিত প্রার্থী তার লিখিত বক্তব্যে আরও বলেন, ‘আ’লীগ মনোনিত প্রার্থী আঃ বারেক মোল্লার ছেলে মাসুদ মোল্লা তার সন্ত্রাসী বাহিনী নিয়ে হুমকী দিয়েছে যে, আমরা যেখানে মাহবুবুর রহমান এমপির সাথে যুদ্ধে নেমেছি, সেখানে তোমরা তো কিছুই না (!) ১৩ ডিসেম্বরের পরে আ’ লীগ প্রার্থীর কর্মী সমর্থক ছাড়া অন্য কোন লোক মাঠে থাকতে পারবে না, যারা থাকবে তাদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন মামলা দিয়ে এলাকা ছাড়া করা হবে। এমনকী ৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচনে ভোট কেটে নেয়া হবে, অন্য প্রার্থীর সমর্থকদের ভোট কেন্দ্রে যাওয়ার দরকার নাই বলেও আমাকে ও আমার সমর্থকদের হুমকি দেয়া হচ্ছে।’ তিনি সুষ্ঠু অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের জন্য এহেন কর্মকান্ড বন্ধে প্রশাসনের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

সংবাদ সম্মেলনে মেয়র প্রার্থী আনোয়ার হোসেন হাওলাদারের কর্মী সর্মথকরা উপস্থিত ছিলেন।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত আ’ লীগ মনোনিত মেয়র প্রার্থী আঃ বারেক মোল্লার ছেলে মাসুদ মোল্লার সাথে ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, যারা অভিযোগ দিয়েছে তারা মিথ্যা অভিযোগ দিয়েছে। এর পরে কথা হয় আঃ বারেক মোল্লার সাথে। তিনি অভিযোগ অস্বীকার করে পাল্টা প্রশ্নে বলেন, আমার ছেলে অথবা কোন সমর্থক যদি কোন প্রার্থীর প্রচারনায় বাঁধা দিয়ে থাকে তাহলে আমি এর বিচার করব। আর যদি কোন কিছুর প্রমাণ পাওয়া না যায় তাহলে যিনি অভিযোগ করেছেন তার বিচার করবে কে?

কলাপাড়া থানার ওসি (তদন্ত) মোঃ মনিরুজ্জামান বলেন, বিষয়টি আমরা অবগত হয়েছি, তদন্ত সাপেক্ষ ব্যবস্থা নেয়া হবে। ###