কুয়াকাটায় পর্যটনবর্ষের সফলতায় মতবিনিময় সভায় তিন মন্ত্রী, চিফ হুইপ ও  জাপা মহাসচিব

3

 

 

গোফরান পলাশ, বিশেষ প্রতিনিধি : পর্যটনবর্ষের সফলতার লক্ষ্যে পৌঁছার অংশ হিসেবে সমুদ্র সৈকত কুয়াকাটায় তিন মন্ত্রী, চিফ হুইপ ও জাপা মহাসচিব’র অংশ গ্রহনে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার দুপুরে কুয়াকাটা পর্যটন হলিডে হোমেস যুব পান্থ নিবাসের হল রুমে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

 

বে-সামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রনালয়ের সচিব খোরশেদ আলম চৌধুরীর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন  বে-সামারিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন এমপি।  বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন পানি সম্পদ মন্ত্রী আনিসুল ইসলাম মাহমুদ এমপি, নৌ পরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খান, জাতীয় সংসদের চিফ হুইপ আ.স.ম ফিরোজ এমপি, জাতীয় পার্টির মহাসচিব ও পটুয়াখালী সদর আসনের সংসদ সদস্য রুহুল আমীন হাওলাদার এমপি প্রমুখ।

 

প্রধান অতিথির বক্তব্যে বে-সামারিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন বলেন, ’কুয়াকাটায় আগত পর্যটকদের পর্যাপ্ত বিনোদনের ব্যবস্থা গ্রহন করেছে সরকার। তবে পর্যটনকেন্দ্র কুয়াকাটার উন্নয়নের জন্য স্থানীয়দের পর্যটকবান্ধব মানসিকতা থাকতে হবে। এসময় তিনি পর্যটকের বিনোদনের জন্য কুয়াকাটার ‘ইলিশ পার্ক’ কর্তৃপক্ষকে সাধুবাদ জানান।’

 

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে পানি সম্পদ মন্ত্রী আনিসুল ইসলাম মাহমুদ এমপি বলেন, ’কুয়াকাটার সমুদ্র সৈকত রক্ষায় এবং বেড়িবাঁধ ভাঙ্গন রোধ করতে হবে। সেলক্ষ্যে বেড়িবাঁধ উঁচুকরণের ব্যবস্থা গ্রহন করেছে সরকার। সমুদ্রের লবন পানি যাতে আবাদী জমি নষ্ট করতে না পারে সেজন্য জলকপাট মেরামত এবং নতুন জলকপাট নির্মাণ করার কথা বলেন তিনি।’

 

মতবিনিময় সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন পটুয়াখালী জেলা প্রশাসক একেএম শামীমুল হক সিদ্দিকী, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান খান মোশারেফ হোসেন, কলাপাড়া উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আব্দুল মোতালেব তালুকদার, কুয়াকাটা পৌরসভার মেয়র আঃ বারেক মোল্লা, মহিপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আ. ছালাম আকন প্রমূখ।

 

এর আগে কুয়াকাটার ওয়াচ টাওয়ার স্থাপনের সম্ভাব্য জায়গা যাচাই এবং কুয়াকাটা সৈকত ভাঙ্গন রোধে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য গঙ্গামতি এবং লেম্বুরচর পরিদর্শ করেন তারা।