কোচিং ক্লাশে শিক্ষার্থীকে জুতাপেটা করেছে শিক্ষক

0

আমতলী প্রতিনিধিঃ বরগুনার আমতলী উপজেলার একে মডেল পাইলট মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের বিতর্কিত শিক্ষক নুরুল ইসলাম এক শিক্ষার্থীকে জুতাপেটা করেছে। এ নিয়ে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী, শিক্ষক অভিভাবকদের মধ্যে ক্ষোভ বিরাজ করছে। নুরুল ইসলাম নামের ওই শিক্ষক পরকীয়াসহ জাতীয় সংগীত চলাকালে কানে আঙ্গুল গুজে রাখার মতো নানা কাজ করে এর আগে বেশ কয়েকবার বিতর্কিত হলেও স্কুল কর্তৃপক্ষ কোন ব্যবস্থা না নেয়ায় বারবার পার পেয়ে যান।

বিদ্যালয় ও অভিভাবক সূত্রে জানা গেছে,  সোমবার রাতে স্কুলের মধ্যে সপ্তম শ্রেনীর কোচিং ক্লাশ চলাকালীন রেদোয়ান ও মুন নামের দুই  শিক্ষার্থীর ঝগড়ার এক পর্যায়ে ওই শিক্ষক রেদোয়ান কে জুতা দিয়ে বেদম প্রহার করেন।

শিক্ষার্থীটির অভিভাবক মো. বশির উদ্দিন জানিয়েছেন, তিনি বিচার চেয়ে ঘটনাটি স্কুলের প্রধান শিক্ষক ও ম্যানেজিং কমিটির সভাপতিকে জানিয়েছেন।

বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ও শিক্ষকরা জানিয়েছেন, শিক্ষক নুরুল ইসলাম বাংলাদেশের জাতীয় সংগীত শুনতে পারেন না। কোন অনুষ্ঠানে জাতীয় সংগীত চলাকালে তিনি প্রকাশ্যে কানে আঙ্গুল দিয়ে রাখেন। এছাড়া তার বিরুদ্ধে পরকীয়াসহ ন্যাক্কারজনক কর্যকলাপেরও অভিযোগ রয়েছে।

শিক্ষক নুরুল ইসলামের সাথে এ ব্যাপারে কথা বলার জন্য বেশ কয়েকবার চেষ্টা করেও যোগাযোগ করা যায়নি।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. আব্দুর রশিদ মিয়া ঘটনার সত্যতা ম্বীকার করেছেন। বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার জানান, অভিভাবকরা আমাকে বিষয়টি জানিয়েছে। তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আমতলীর উপজেলা মাধ্যামিক শিক্ষা অফিসার গোলাম মস্তফা জানান,  শিক্ষার্থীকে জুতাপেটা ও কোচিং করানো বিষয়গুলো তদন্ত পূর্বক আইনগত  ব্যবস্থা নেয়া হবে।