গলাচিপায় ক্ষমতাশীনদের সহায়তায় সামাজিক বনায়নের গাছ উজাড়

2

 

নাসির উদ্দিন গলাচিপা বিশেষ প্রতিনিধিঃ গলাচিপায় পানি উন্নয়ন বোর্ডের ৫৫/১ পোল্ডারের বেড়িবাঁধে সৃজিত সামাজিক বনায়ন উজাড় হয়ে যাচ্ছে। এলাকার ক্ষমতাশীন প্রভাবশালীদের ছত্রছায়ায় একশ্রেনীর বনদস্যু রাতের আঁধারে প্রায় ৩ কিলোমিটার এলাকার বেড়িবাঁধের মূল্যবান গাছ উজাড় করে ফেলেছে। দিন দুপুরে কেটে নিচ্ছে শত শত গাছ। এলাকার বনাঞ্চলের বেশ দামি কাঠের গাছসহ কম দামেরও গাছও রেহাই পাচ্ছে না এদের হাত থেকে। কেবল গত এক সপ্তাহেই কাটা পড়েছে দুই শতাধিক গাছ। একশ্রেনীর অসাধু বনকর্মী ও কর্মকর্তাদের সহায়তায় এসব  গাছ উজাড় হচ্ছে। এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট বিট কর্মকর্তা মোঃ আহসান বনবিভাগের কারও জড়িত থাকার কথা অস্বীকার করেন।

অভিযোগ রয়েছে, স্থানীয় ক্ষমতাধর প্রভাবশালীদের ছত্রছায়ায় এ এলাকায় গড়ে উঠেছে এক বিরাট বনদস্যু বাহিনী। রতনদি তালতলী ইউনিয়নের গ্রামর্দন গ্রাম থেকে শুরু করে একই ইউনিয়নের পাতাবুনিয়া গ্রাম পর্যন্ত প্রায় তিন কিলোমিটার বেড়িবাঁধ জুড়ে এ বনদস্যুদের রাজত্ব। এ এলাকায় দুই যুগ আগে বনবিভাগ সৃজিত সামাজিক বনায়নে আকাশ মনি, মেহগনি, ইপিল ইপিল, চাম্বল, কড়াই, রেইনট্রিসহ বিভিন্ন প্রকার গাছ রোপন করা হয়। সময়ের ব্যবধানে এসব গাছ পরিনত হয় মূল্যবান সম্পদে। মোটা টাকার বিনিময়ে বন কর্মীদের ম্যানেজ করে এসব গাছ কাটছে বনদস্যুরা। তাই তারা সব কিছু দেখেও না দেখার ভান করে এড়িয়ে যাচ্ছেন। বদনাতলী গ্রামের হারুন অর রশিদ দাবি করেন, তিনি বনদস্যুদের গাছ কেটে নিয়ে যাওয়ার ব্যাপারে বনবিভাগের লোকজনকে অবহিত করলেও তারা বিষয়টি দেখবেন বলে তাকে আশ^াস দেন। কিন্তু ওই পর্যন্তই। এরপরেও নির্বাচারে চলছে গাছকাটা।এ ব্যাপারে ওই এলাকার রেইঞ্জ কর্মর্কতার ফোনে বার বার ফোন করা হলেও তিনি রিসিভ করেননি।