গলাচিপায় পুলিশ কনেস্টবলের বিরুদ্ধে এলাকাসীর নানা অভিযোগ

1

মোঃ নাসির উদ্দিন, গলাচিপা ঃ পুলিশে কর্মরত গলাচিপার সাইফুল ইসলামের বিরুদ্ধে একাধীক অভিযোগ করেছে এলাকাবাসী। পুলিশি ক্ষমতার দাপট দেখিয়ে তিনি মানুষকে হয়রানী করছেন বলে জানান স্থানীয়রা। গলাচিপা উপজেলার চরখালী গ্রামের সাইফুল ইসলাম(সোহেল) বর্তমানে ভোলা জেলায় পুলিশের কনেস্টবল হিসেবে কর্মরত আছে পটুয়াখালীর -৩ (গলাচিপা-দশমিনা) আসনের সংসদ সদস্য আ.খ.ম জাহাঙ্গীর হোসাইনের কাছে সোহেলসহ তার পরিবারের বিরুদ্ধে প্রায় স্থানীয় লোকজন অর্ধশতাধিক লিখিত অভিযোগ করেছেন। এ বিষয়ে গতকাল মঙ্গলবার গলাচিপা থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছালে শত শত লোক ভিড় জমায় । এ সময় তারা সাইফুল ইসলাম (সোহেল)এর ও তার পরিবারের বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ করেন।

স্থানীয় সূত্র জানায়, দক্ষিন চরখালী গ্রামের সোনা মিয়ার স্ত্রী ময়না বিবি সহিদুল মু্িন্সর ফুফাত বোন ময়নার বেগমের মাতৃসূত্রীয় ৩৩ শতাংশ সম্পত্তি বুঝ না দিয়ে ২০বছর ধরে জোরপূর্বক ভোগ করে আসছে।

একই গ্রামের কাছেম পাহলানের স্ত্রী সালেকা বেগম অভিযোগ তোলেন তার ৩০শতক জমি কবলা নিয়ে এক একর ছয় শতক জমি ২৯ বছর ধরে ভোগ দখলে রাখে। কালাম বয়াতীর ২৬ শতক, জামাল বয়াতীর ২০শতক, শহিদুল সিকদার ৩৫ শতক, হক ফরজীর ৩৫ শতক ,দেলোয়ার মুন্সির ১২ এবং জামাল হাজীর এক একর বিশ শতক জমি অন্যয় ভাবে জোরপূর্বক দখল করে আসছে সাইফুল ইসলামসহ তার পরিবারবর্গরা। চরখালী গ্রামের মোনতাজ উদ্দিন প্যাদার পুত্র শফিক প্যাদা অন্য একটি মামলায় ১৭.২.১৫ইং তারিখ থেকে ৫.৩.১৫ইং তারিখ পর্যন্ত জেল হাজতে থাকলে তার বিরুদ্ধে ২৬.২.১৫ইং তারিখ গাছ কাটার মামলার ঘটনার তারিখ দেখায়। যার মামলা নং জিআর- ৫৬।

স্থানীয় ভুক্তভোগীরা জানান, সাইফুল ইসলাম (সোহেল) এর পিতা মো: শহিদুল ইসলাম (এসমাইাল) গলাচিপা উপজেলাধীন ৫৮ নং যুদ্ধাপরাধীর তালিকায় নাম অর্ন্তভূক্ত রয়েছে। তিনি সবসময়ই স্থানীয় লোকদের ভয়ভীতি দেখায় এবং তাদের বিরুদ্ধে স্থানীয়রা অভিযোগ করলে হয়রানীর মাত্রা বাড়িয়ে দেয় যা সর্বসাধারণের কাছে মোবাইলে ধারনকৃত আছে।

এ ব্যপারে মো: শহিদুল ইসলাম (ইসমাইল) জানান, যারা অভিযোগ তোলেন তারা আমাদের ভাল চায় না, জমি কবলা দিয়ে আমাকে ভোগ দিতে চায় না, আর আমার পুত্রের ব্যাপারে মিথ্যা কথা বলছে।##