গলাচিপায় বাল্য বিয়ের হিরিক

2

 

নাসির উদ্দিন, গলাচিপা : পটুয়াখালীর গলাচিপা উপজেলার রতনদী-তালতলী ইউনিয়নে ঊলানিয়া বাজারে অবাধে চলছে বাল্য বিবাহ। সরেজমিনে জানা যায়, মোঃ কাঞ্চন বয়াতির ছেলের বাসায় বর্তমান ভাড়াটিয়া জব্বার খানের মেয়ে সুমি (১৪) কে দশমিনা থানার মামুন এর সাথে বিয়ে দেয়া হয়েছে। সুমি বর্তমানে উলানিয়া হাট উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণীর ছাত্রী। সুমি জানান, তার বাবা ও ছেলের পরিবার তার অজান্তে বিয়ের কাজটি সম্পন্ন করছে। সে তার স্বামীর নাম জানলেও শশুরের নাম জানে না। তার কলমা হলেও বয়স কম থাকার কারণে এখন পর্যন্ত কাবিন করতে পারেনি অভিভাবকরা। দশমিনার এক কাজীর মাধ্যমে বিয়ে পড়ানো হয়। তিনি আরও বলেন, বাবর সম্মানের কথা ভেবে বাধ্য হয়ে এ বিয়ে মেনে নেই।

উক্ত বিষয়টি সম্পর্কে  ফোনে সুমির বাবার কাছে জানতে চাইলে তার মোবাইলটি বন্ধ পাওয়া যায়। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, জব্বার খাঁন বাসায় তেমন একটা থাকেন না।

উলানিয়া হাট স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ মাহাফুজ মুঠো ফোনে জানান, সুমি অষ্টম শ্রেণীর ছাত্রী। তিনি এ বিবাহের বিষয়ে কিছুই জানেন না। উলানিয়া পুলিশ ফাড়ি ইনচার্জ হাবিলদার নাসির এর কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান, উলানিয়া পুলিশ ফাড়িতে থাকা অবস্থায় আমি বাঁধা দেওয়ার পর বাল্য বিবাহ সাময়িক বন্ধ থাকে, কিছু পরে গোপনে বিবাহের কাজটি সম্পন্ন করা হয়। শুধু কলমা পরিয়ে কাবিন না করে সুমির  অনুপস্থিতিতে বিয়েটি হয়।

বাল্য বিবাহের বিষয়টি গলাচিপার ভারপ্রাপ্ত উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) কাজী মোঃ সায়েমুজ্জামানকে অবহিত করলে তিনি যথাযথ পদক্ষেপ নেয়ার আশ্বাস দেন।