গলাচিপায় হারিয়ে যাচ্ছে কাঠের নৌকা

1

নাসির উদ্দিন,বিশেষ প্রতিনিধি গলাচিপাঃ কালের গর্ভে দিন দিন হারিয়ে যাচ্ছে কাঠের নৌকা। এমন বাস্তব চিত্রই দেখা যায় পটুয়াখালীর গলাচিপা পৌরসভার কাঠপট্টিতে। এক সময়ে এই কাঠ পট্টিতে শত শত নৌকা তৈরীতে ব্যস্ত সময় পার করতেন নৌকা তৈরীর মিস্ত্রিরা। আশির দশকেও এখানে নৌকা তৈরীর মিস্ত্রিরা মুখে ভাটিয়ালি গানের সুরে নতুন নৌকা তৈরীতে মনের আনন্দে মেতে থাকতেন। আজ নতুন নৌকা তৈরীর কাজে  উৎসাহ হারিয়ে ফেলছে মিস্ত্রিরা। এই কাঠপট্টিতে এখন নেই কোন ভাটিয়ালির সুর, নেই কোন হাতুরীর বারির টুক টাক শব্দ। দু’এক জায়গায় নতুন নৌকা তৈরী করতে দেখা গেলেও মিস্ত্রিদের মাঝে সেই আগের মত জৌলস দেখা যায় না। এ ব্যাপারে আ. করিম , মু. মামুন , মু. শাহজাহান, মু. হাবিব , মু. খোরশেদ  ,ক্ষিতিশ ও অমৃত মাল মিস্ত্রিরা  জানান,  দীর্ঘ বারো হাত একটি নতুন নৌকা কাঠ দিয়ে তৈরি করতে দু’জন মিস্ত্রির প্রায় একদিন সময় গেলে যায়। কিন্তু আমাদের এ দু’জন মিস্ত্রির মজুরী হয় মাত্র সাত শত টাকা। তারা আরও বলেন, কাঠের নৌকা এখন অনেক কমে গেছে। মজুরী কম থাকায় আমাদের অনেকেই আজ অন্য পেশায় চলে গেছেন। আশ্বিন ও কার্তিক মাসে নৌকা বানানোর কাজ মোটামুটি থাকে। কেননা ওই সময়ে জেলেরা ছোট ছোট নৌকা তৈরি কওে নদীতে নেয়ার জন্য ব্যস্ত থাকে।এ ব্যাপারে কাঠের আড়ৎদার  মোঃ শহিদুল দালাল  মু. ফারুক বেপারী, আলী আশ্রাব বেপারী, মু. জাফর বেপারী, মু. ফজলে বেপারী, মু. রাসেল বেপারী, মু. আফজাল খন্দকার, মু. শহিদুল বেপারী এরা সকলে জানান, আগের তুলনায় এখন কাঠের তৈরি নৌকার মালামালের চাহিদা অনেক কমে গেছে। কাঠের তৈরি নৌকা কম চলায় আমাদের কাঠের আড়ৎগুলোতে আগের মত সেই বেচা কেনা আর নেই।