ঘুমন্ত কিশোরীর উপর এসিড নিক্ষেপ: গ্রেফতার ০১

0

গোফরান পলাশ, কলাপাড়া প্রতিনিধি: পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় ঘুমন্ত এক কিশোরীর উপর এসিড নিক্ষেপ করে তার মুখমন্ডল সহ শরীর ঝলসে দেয়া হয়েছে। উপজেলার লালুয়া ইউনিয়নের ১১ নং হাওলা গ্রামে শুক্রবার গভীর রাতে এ ঘটনা ঘটে। শনিবার সকালে ভিকটিম কিশোরী জুলিয়া বেগম (১৫) কে চিকিৎসার জন্য কলাপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। পুলিশ ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে মো: নুরসাঈদ ওরফে নুরু (৩৫) নামের এক যুবককে আটক করেছে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, শুক্রবার রাতে প্রতিদিনের মত রাতের খাবার খেয়ে বাড়ীর দোতালায় ঘুমিয়ে পড়ে কিশোরী জুলিয়া বেগম। এরপর গভীর রাতে দোতালার জ্বানালা দিয়ে ওই কিশোরীকে লক্ষ্য করে এসিড নিক্ষেপ করা হয়। এতে ওই কিশোরীর মুখমন্ডল সহ শরীর ঝলসে যায়।

এসিড দগ্ধ জুলিয়ার মা শিরিন বেগম জানান, রাতে সবাই ঘুমিয়ে ছিলো। হঠাৎ জুলিয়ার আর্তচিৎকারে বাড়ীর লোকজন জেগে ওঠে। তবে কে বা কারা তার কিশোরী মেয়ের উপর এসিড নিক্ষেপ করেছে তা নিশ্চিত করে সে বলতে পারেনি। তবে একই এলাকার নুরসাঈদ ওরফে নুরু জুলিয়াকে উত্যক্ত করে আসছিল বলে জানায় সে।

এসিড দগ্ধ কিশোরী জুলিয়া জানায়, ’রাতের খাবার খেয়ে আমি ঘুমিয়ে ছিলাম। হঠাৎ শরীরে অসম্ভব যন্ত্রনা অনুভব করি। যন্ত্রনা লাঘবে পরিবারের সদস্যরা রাতভর আমার শরীরের দগ্ধ স্থানে পানি ঢেলে দেয়।’

কলাপাড়া হাসপাতালের চিকিৎসক ডা: জেএইচ খান লেলিন জানান, জুলিয়ার কপালের বাম পার্শ্বে এবং বাম হাতের বিভিন্ন অংশ ঝলসে গেছে। বর্তমানে তাকে নিবিড় পর্যবেক্ষন ও  চিকিৎসাসেবা প্রদান করা হচ্ছে।

লালুয়া ইউপি চেয়ারম্যান মীর তারিকুজ্জামান তারা জানান, এ খবর শোনার পরই আমি ওই কিশোরীকে দেখতে হাসপাতালে গিয়ে ছিলাম। বিষয়টি অমানবিক। যে এ কাজ করেছে তার শাস্তিÍ হওয়া দারকার বলে তিনি মন্তব্য করেন।

কলাপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জিএম শাহনেওয়াজ জানান, পুলিশ এ ঘটনায় নুরসাঈদ ওরফে নুরু নামের এক যুবককে শনিবার দুপরে গ্রেফতার করেছে। এ বিষয়ে কলাপাড়া থানায় ওই কিশোরীর পিতা মো: জাফর রাজা বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করেছেন।