চতুর্থ সেমিষ্টারে প্রভিশন বাতিলের দাবিতে: ছাত্র-বিক্ষোভে উত্তাল পবিপ্রবি ক্যাম্পাস প্রশাসনিক ভবনের প্রধান গেটে তালা অবরুদ্ধ ভিসি-রেজিষ্ট্রারসহ কর্তৃপক্ষ

4

 

মোঃ জসিম উদ্দিন ,দুমকি প্রতিনিধিঃ চতুর্থ সেমিষ্ট্রারে প্রভিশন’র নিয়ম বাতিলের দাবিতে লাগাতার ছাত্র বিক্ষোভে উত্তাল হয়ে ওঠেছে পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস।  বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা ক্যাম্পাসের বিভিন্ন গেট ও প্রশাসনিক ভবনের মেইন গেটের কলাপসিবল গেটে তালাঝুলিয়ে দিয়েছে। এতে অবরুদ্ধ রয়েছে ভিসি-রেজিষ্ট্রারসহ বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা।

আজ মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১০টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন অনুষদের শিক্ষার্থীরা কর্তৃপক্ষের সাম্প্রতিক সিদ্ধান্ত বাতিলের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল বের করে। বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা প্রশাসনিক ভবনের (ভিসি-রেজিষ্ট্রারার কার্যালয়) প্রধান গেটে অবস্থান নিয়ে লাগাতার বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ শুরু করলে প্রশাসনিক ভবন অবরুদ্ধ হয়ে পড়ে। এসময় জনৈক শিক্ষক কর্তৃক জনৈক শিক্ষার্থীকে ধাক্কা দেয়ায় শিক্ষার্থীদের মাঝে তীব্র উত্তেজণা ছড়িয়ে পড়ে। খবর ছড়িয়ে পড়লে বিভিন্ন হলের আবাসিক শিক্ষার্থীরা জড়ো হয়ে লাগাতার বিক্ষোভ প্রদর্শন ও গেটে শুয়ে ও বসে পড়ে অবস্থান ধর্মঘট শুরু করে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিবিএ ৩য় ও ৫ম সেমিষ্টারের কয়েকজন শিক্ষার্থী জানায়, পবিপ্রবিতে চলমান সপ্তম সেমিষ্টারে প্রভিশণের রীতি তুলে দিয়ে কর্তৃপক্ষ সম্প্রতি তা চতুর্থ সেমিষ্টারে নিয়ে এসেছে।্ ফলে অন্তত: ১০ বিষয়ে অকৃতকার্য শিক্ষার্থীদের চতুর্থ সেমিষ্টারের প্রভিশন নিয়মে আটকে দেয়া হয়েছে। কর্তৃপক্ষের এমন হটকারী সিদ্ধান্ত বাতিলের দাবিতে তারা আন্দোলনে যেতে বাধ্য হতে হয়েছে। বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা একাডেমিক কাউন্সিলের ওই সিদ্ধান্ত বাতিল চেয়ে বিক্ষোভ মিছিল করে প্রশাসনিক ভবনের কলাপসিবল গেট তালাবদ্ধ করে দিয়ে সামনেই অবস্থান নেয়। এতে সাড়ে ১০টা থেকে বেলা ৪টা পর্যন্ত ভিসি-রেজিষ্ট্রারসহ প্রশাসনিক ভবনের সকল কর্মকর্তা-কর্মচারীরা অবরুদ্ধ রয়েছে। বেলা দেড়টার দিকে বিক্ষোভকারীদের জনৈক শিক্ষার্থীকে একজন বিভাগীয় শিক্ষক ধাক্কা দিয়ে লাঞ্ছিতের ঘটনায় সাধারন শিক্ষার্থীদের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। এতে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা আরও কঠোর অবস্থান নেয়। বিকেল ৪টায় শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ক্যাম্পাস অবরুদ্ধ রয়েছে।

অপর দিকে ছাত্রবিক্ষোভ নিবৃত করতে অবরুদ্ধ প্রশাসনিক ভবনে ভিসি-রেজিষ্টারসহ কর্তৃপক্ষের জরুরী বৈঠক চলছে। এ বিষয়ে মোবাইল ফোনে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিষ্ট্রার (চলতি দায়িত্ব) অধ্যাপক স্বদেশ চন্দ্র সামন্ত বলেন, শিক্ষার্থীদের দাবি বিবেচনার জন্য ছাত্র শৃঙ্খলা বোর্ড ও একাডেমিক কাউন্সিলের জরুরী বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেয়া হবেক।