চরকাজলে প্রধান শিক্ষকের ভূলের কারণে শির্ক্ষাথী বিপাকে

0

 

মোঃ নাসির উদ্দিন, গলাচিপা : পটুয়াখালীর গলাচিপা উপজেলার বড়শিবা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আল-মামুন এর ভূলের কারণে প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষায় শুরুর ১ ঘন্টা ৩৫ মিনিট পরে পরীক্ষায় অংশগ্রহনের সুযোগ পেয়েছে এক শিক্ষার্থী। রেজিষ্ট্রেশনে ভূল হওয়ার কারণে এমনটি ঘটেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।
সূত্র জানায়, বেল্লাল খানের ছেলে মোঃ রাসেল খান প্রাথমিক সমাপনী পীরক্ষায় অংশগ্রহণ করার জন্য পরীক্ষা কক্ষে প্রবেশ করলে প্রবেশ পত্র না থাকায় কর্তৃপক্ষ তাকে বের করে দেয়। এর কারণ জানতে চাইলে তখনই বেরিয়ে আসে বিষয়টি । প্রধান শিক্ষক আল মামুন ভুল করে রেজিষ্ট্রেশনে অন্য নাম দিয়ে দেয়ায় ওই নামই রেজিস্ট্রেশন হয় যে নামে কোন পরীক্ষার্থী নেই।
এ বিষয়ে বড়শিবা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আল মামুনের কাছে ফোন করলে তার ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।
স্কুলের ম্যনেজিং কমিটির সভাপতি মু. দুলাল গাজী জানান, প্রধান শিক্ষক, আল-মামুন যে ভূল করেছে তা একজন শিক্ষার্থীর জীবনে এটা বড় হুমকি, আমি একজন অভিভাবক হিসেবে তার এই ভূলের কারণে একজন শিক্ষার্থী এভাবে তার জীবনের উন্নতির পথে বাধাঁ হবে, এটা আশা করি না তবে ওই শিক্ষার্থীর পরীক্ষার ব্যাবস্থা করেছি।
এ বিষয়ে গলাচিপা উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আব্দুছ সত্তার জোমাদ্দার এর কাছে মুঠো ফোনে জানতে চাইলে, তিনি বলেন, আমি ঘটনাটি শুনেছি, লিখিত অভিযোগ পেলে ঐ শিক্ষকের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যাবস্থা নেব।