ছোট বিঘাই ইউপি নির্বাচনী সহিংষতায় আহত ১২ 

14

ডেক্স রির্পোটঃ পটুয়াখালী সদর উপজেলার ছোট বিঘাই ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে দু পক্ষের সমর্থকদের সংর্ঘষে ১২ জন আহত হয়েছে। গুরুতর আহত ৬জনকে পটুয়াখালী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।বাকীরা প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ছোট বিঘাই ইউনিয়নের ৪ নং ওয়ার্ডে মাটিভাংগা এলাকায়  আওয়ামী লীগ নৌকা মনোনীত চেয়ারম্যান  প্রার্থী মোঃ আলতাফ সিকদারের সমর্থকরা নির্বাচনী প্রচারনা শেষ করে স্বতন্ত্র প্রার্থী আনারস প্রতীকের চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী লাল গাজীর বাড়ির সামনে দিয়ে যাওয়ার পথে নৌকা সমর্থক সেলিম ফকিরকে ধরে বাড়ির ভিতর নিয়ে ইট দিয়ে গুরুতর জখম করে । এই খবর ছড়িয়ে পড়লে উভয় পক্ষের মধ্যে সংর্ঘষ বাধেঁ। এতে নৌকা সমর্থক সেলিম ফকির (৫০), আঃ সালাম (৩৬), আনছার মাতবর(৪৫), ফরিদ হাওলাদার  (২১) এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী সমর্থক মজিবর মৃধা (৫৫) ও জুয়েলমাতবর (২৫) গুরুতর আহত হয়। আহতরা পটুয়াখালী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

এব্যাপারে স্বতন্ত্র প্রার্থী আনারস প্রতীকের চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী লাল গাজী জানান , আমাকে নৌকার চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী মোঃ আলতাফ সিকদার বিভিন্ন ভাবে নির্বাচনী প্রচারণা বাধা প্রদান করছেন আমাকে বাড়ি থেকে বের হতে দিচ্ছেন না এবং ওল্টো আমার সমর্থকদের মারধর করেছে।

অপর দিকে আওয়ামী লীগ নৌকা মনোনীত চেয়ারম্যান  প্রার্থী মোঃ আলতাফ সিকদার জানান , ডাকাত  মকিম গাজীর ভাই লাল গাজী । একজন খারাপ লোক । তিনিই প্রথম আমার সমর্থকদের ধরে বাড়ির ভিতর নিয়ে মারধর করে গুরুতর আহত করেছেন।তিনি এ ব্যাপারে সদর থানায় মামলা করবেন বলে জানিয়েছেন ।

এব্যাপারে পটুয়াখালী সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কে এম তরিকুল ইসলাম জানান, ছোট বিঘাই ইউনিয়নের ৪ নং ওয়ার্ডে মাটিভাংগা এলাকায়  দু পক্ষের সমর্থকদের সংর্ঘষের খবর পেয়ে আমিসহ সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে ঘটনা স্থলে গিয়ে পরিবেশ শান্ত করি। পরবর্তীতে আর কোন অপ্রতিকার ঘটনা না ঘটতে পারে সে জন্য  ফোর্স রেখে আসি।