দশমিনায় ৭ প্রাথমিক বিদ্যালয় দুই শিক্ষক পাঠদান চালায়

6

মামুন তানভীর দশমিনা প্রতিনিধিঃ পটুয়াখালীর দশমিনা উপজেলায় ৭ টি প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রায় ৭ শতাধিক শিক্ষার্থীর পাঠদান চলে ২ জন করে শিক্ষক দিয়ে। এসব প্রতিষ্ঠানে নেই প্রয়োজনীয় আসবাপত্র।

উপজেলা শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার নব গঠিত ইউনিয়ন চর বোরহানের চর বোরহান সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় মোট ছাত্র ছাত্রী ১৬৫,চর ভোলাইশিং সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ৮২,রনগোপালদি ইউনিয়নের উওর রনগোপালদি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ১১০, মধ্য রনগোপালদি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ১৩৫,বহরমপুর ইউনিয়নের মধ্য বহরমপুর (সদ্য) সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ৯৫, আলীপুর ইউনিয়নের পশ্চিম আলীপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ১২০ ও পূর্ব চাঁদপুরা রেডিক্রিসেন্ট সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ৮২ জন ছাত্র ছাত্রী রয়েছে।

সরেজমিনে দেখা যায়, এসব প্রতিষ্ঠানে দু’সিফটে ক্লাস চলে। প্রতি সিফটে ৩ জন করে শিক্ষক থাকার নিয়ম থাকলেও রয়েছে মাত্র ২ জন করে। তার মধ্যে অফিসিয়াল কাজ ও মাসিক সভাসহ ৪/৫ দিন ছুটে আসতে হয় উপজেলা সদরে শিক্ষা অফিসে। এছাড়া শারিরীক সমস্যা ও পারি পাশিকতায় ২/১ দিন ছুটি নিয়ে থাকে শিক্ষকরা। ফলে ৭ প্রতিষ্ঠানে ১৪ জন শিক্ষক দিয়ে ৭ শতাধিক ছাত্র ছাত্রীর পাঠদানে অত্যান্ত শ্রম দিতে হচ্ছে শিক্ষকদের। প্রতিষ্ঠান গুলোর শিক্ষকরা বলেন,শিক্ষক সংকটের পাশাপাশি রয়েছে আসবাপত্র সংকট। ক্লাস চলে গাছ তলায় কিংবা মাটিতে হোগলা বিছিয়ে। উপজেলা শিক্ষা অফিসার আবুল বশার বলেন, বিষয়টি উপজেলা শিক্ষা কমিটির সভায় তুলে ধরা হয়েছে এবং রেজুলেশন আকারে জেলা কমিটির বরাবরে প্রেরন করা হবে।