পটুয়াখালীর কলাপাড়া ফেরীঘাটে নিয়ন্ত্রন হারিয়ে ট্রলি খেয়ানৌকার উপরে নৌকা ডুবিতে নিখোজ অর্ধশত-আহত ১২,উদ্ধার কাজ চলছে

1

12নীনা আফরীন,পটুয়াখালী ঃ কুয়াকাটা-ঢাকা মহাসড়কের কলাপাড়া শহর সংলগ্ন আন্ধার মানিক নদীর ফেরীঘাটে নিয়ন্ত্রন ট্রলি একটি খেয়া নৌকার উঠে পড়লে নৌকা ও লড়ি ডুবতে শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত পর্যটকসহ অর্ধশত যাত্রী নিখোজ রয়েছে। কলাপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আজিজুর রহমান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন। উদ্ধার তৎপরতা চলছে।

 

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ জানায় সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টার দিকে আন্ধার মানিক নদীর কলাপাড়া অংশে ফেরীটি ভেড়ানো ছিলো। মালামাল পরিবহনের কাজে নিয়োজিত লড়িটি ফেরীতে উঠে নিয়ন্ত্রন হারিয়ে ফেরীর অপর পাশে যাত্রী বোঝাই খেয়া নৌকার উপরে গিয়ে পড়ে। এতে তাৎক্ষনিকভাবে খেয়া নৌকাটি দুমড়ে মুচড়ে ট্রলিসহ আন্ধার মানিক নদীতে ডুবে যায়। খেয়া নৌকার যাত্রী ইব্রাহিম(৩৫),সেলিম(৩৫)সহ একাধীক ব্যাক্তি জানান,খেয়া নৌকাটিতে শতাধীক যাত্রী ছিলো। ট্রলিটি এত দ্রুত খেয়া নৌকাটির উপর নিয়ন্ত্রন হারিয়ে পরে যে কোন কিছু বোঝার আগেই নৌকাটি ডুবে যায়। তারা জানান, কিছু যাত্রী তীরে উঠতে পারলেও অর্ধশত শতাধীক যাত্রী এখোনো নিখোঁজ রয়েছে। দূর্ঘটনার পর পরই কলাপাড়া ফায়ার সার্ভিসের একটি উদ্ধারকারী দল উদ্ধার অভিযানে নেমেছে।

 

কলাপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আজিজুর রহমান তিন জন নিখোজের কথা নিশ্চিত করেছেন। তারা হলেন সামিরা(৬),নিশাত(১০) এবং ট্রলারের ভাড়া উত্তোলনকারী নিজাম(১৭)।

 

কলাপাড়া হাসপাতাল সুত্র জানিয়েছে এ পর্যন্ত আহত ১২ জনকে চিকিৎসা প্রদান করেছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। আহজতরা হলেন আকলিমা(৪৫),রাবেয়া(৩৫),পারভীন(৩৭), জালাল রাঢ়ী(৭০), রওশান আরা(৩৫), হাজেরা বেগম(৩৬),রুবি(২৭),সেলিম(৩৫),মনিরা (৩৪),সেজান(৭),মোহাম্ম্দ আলী(৪),ইব্রাহিম(৩৫)।