পটুয়াখালী পৌরসভাকে  আধুনিক পৌরসভা হিসেবে গড়ে তোলা হবে–স্থানীয় সরকার বিভাগের সচিব আবদুল মালেক

3

 

স্টাফ রিপোর্টারঃ আগামী দিনে পটুয়াখালী পৌরসভাকে  আধুনিক নগরী হিসেবে গড়ে তোলা হবে । সকল রাস্তা কংক্রিস্ট রাস্তা, সৌন্দর্য্য বর্ধন, ওয়াচ টাওয়ার, ফুট ওভার ব্রিজ, নতুন মার্কেটসহ শিশু বান্ধব পৌরসভা গড়ে তোলা হবে। আগামী ২০১৮ সালের ডিসেম্বরে বাংলার স্বপ্ন পদ্মা সেতু চালু হলে বাংলাদেশর শ্রেষ্ঠ বানিজ্যিক জোন হবে এই পটুয়াখালী জেলা।এ  জেলাকে শেখ হাসিনা সরকার উন্নয়ণে একটি আধুনিক জেলা হিসেবে রুপান্তিত করবেন। একটি কু-চক্রি মহল বাংলাদেশকে আফগান ও পাকিস্তান বানাতে চায়। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা সরকার তা শক্ত হাতে দেশের জনগণকে সাথে নিয়ে সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদ মোকাবেলা করছেন। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ণ ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের স্থানীয় সরকার বিভাগের সচিব আবদুল মালেক শনিবার রাত সাড়ে ৮টায় পটুয়াখালী শহরের কালিকাপুর চৌরাস্তায় ফুটওভার ব্রীজ উদ্বোধন কালে তার বক্তব্যে তিনি এই কথা গুলো বলেন। তিনি আরও বলেন,ঢাকা জেলার বাহিরে এই প্রথম কোন জেলা শহরে ফুটওভার ব্রীজ নির্মিত হলো। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সুদৃষ্টির কারনেই পটুয়াখালীতে পায়রাবন্দর, ১৩০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপনসহ ১১টি মেগা প্রজেক্ট বাস্তবায়ন করছেন। ২০১৮ সালের মধ্যে দক্ষিনাঞ্চল হবে দেশের অন্যতম শ্রেষ্ঠ অর্থনৈতিক জোন। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্ন সোনার বাংলা গড়তে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০২১ সালের আগে দেশকে মধ্যম আয়ের দেশে উন্নীত করতে  মানুষের কল্যানে নিদ্রাহীন দিন-রাত অক্লান্ত পরিশ্রম করছেন। আমরা তার নেতত্ব¡াধীন  সরকারের কর্মী হয়ে সকল উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়ন কাজ করে যাচ্ছি।  উন্নয়ন প্রকল্পের অর্থ অনৈতিকভাবে খরচ না হয় সেদিকে লক্ষ্য রেখে আমাদের সকলকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে। তিনি ইসলাম র্ধমের আর্দশের কথা তুলে ধরে ,“জঙ্গি ও সন্ত্রাস ইসলামের পথ নয় এ ব্যাপারে সবাইকে সচেতন থাকার আহবান জানান।

এসময় তার সাথে উপস্থিত ছিলেন পটুয়াখালীর সাবেক জেলা প্রশাসক বর্তমান স্থানীয় সরকার বিভাগের যুগ্ম সচিব অমিতাভ সরকার, জেলা পরিষদ প্রশাসক ও জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা খান মোশারেফ হোসেন, ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক মো. দেলোয়ার হোসেন মাতুব্বর, পুলিশ সুপার সৈয়দ মোসফিকুর রহমান, পৌরসভার মেয়র , জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এবং দৈনিক পটুয়াখারী প্রতিদিন পত্রিকার সম্পাদক ডা. শফিকুল ইসলাম, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান এড.তারিকুজ্জামান মনি, বাউফল পৌর সভার মেয়র জিয়াউল হক জুয়েল, পটুয়াখালীর এলজিইডি নির্বাহী প্রকৌশলী আবু সালেহ মো. হানিফ,দশনিা উপজলা পরিষদ চেয়ারম্যান এ্যাড, মোঃ সাখাওয়াত হোসেন শওকত,পটুয়াখালী পৌর সভার প্রধান নির্বাহী প্রকৌশলী আব্দুল হালিম, জেলা আওয়ামী লীগের শ্রম বিষয়ক সম্পাদক গাজী হাফিজুর রহমান (ছবির),  উপ-প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক এ্যাড, উজ্জল বোস, কোষাধ্যক্ষ অধ্যক্ষ দেলোয়ার হোসেন, দৈনিক পটুয়াখালী প্রতিদিন পত্রিকার প্রকাশক গোলাম সরোয়ার বাদল,জেলা পরিষদের সহকারী প্রকৌশলী মো. আরিফুর রহমান, সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান মনির, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সোহানা হোসেন মিকি,জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ রাশেদ খান, শ্রমিকলীগের সভাপতি এ্যাড,মোঃ শাহিন মিয়া, সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান, পৌরসভার বস্তী উন্নয়ন কর্মকর্তা বভানী শংকর,পৌর কাউন্সিলর মোঃ নিজামুল হক,তারিকুজ্জামান লিটন,বাসুদেব কুন্ড,এ্যাড.আক্তারুজ্জামান নোভেল,এস এম তোহিদ,মিজানুর রহমান হান্নান, আঃ বারেক হাওলাদার, দেলোয়ার হোসেন আকন,এস এম মতিন মাহমুদ জাহিদ সিকদার,সীমা সরকার শোভা,আকলেমুন্নেছা রুবী, জাহানারা রাজ্জাকসহ এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ, সুধীজন উপস্থিত ছিলেন।  উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে দোয়া মোনাজাত পরিচালনা করেন বড় জামে মসজিদের খতিব মাওলানা আবু সাঈদ।