পবিপ্রবিতে ভিসি’র অনিয়ম-দূর্ণীতি ও নিয়োগ বাণিজ্য সংবাদ সম্মেলনে নাগরিক ফোরাম’র প্রতিবাদ

1

 

মজিবুর রহমান ,দুমকি প্রতিনিধিঃ পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (পবিপ্রবি) উপাচার্য প্রফেসর ড. মো. শামুসদ্দীনের বিরুদ্ধে অনিয়ম-দূর্ণীতি, স্বজনপ্রীতি, বিএনপি-জামায়াত পুনর্বাসন ও ঢালাও নিয়োগ বাণিজ্যের তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছেন দুমকি উপজেলার সম্মিলিত নাগরিক ফোরাম। গত সোমবার (২৭ জুন) সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় প্রেসক্লাব সম্মেলন কক্ষে আহুত জনাকীর্ণ সংবাদ সম্মেলনে সম্মিলিত নাগরিক ফোরামস নেতৃবৃন্দ ২২দফা অনিয়মের অভিযোগ করেন। সংবাদ সম্মেলনে সম্মিলিত নাগরিক ফোরাম’র সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা আবদুল হাকিম খান তাঁর লিখিত বক্তব্যে অভিযোগ করেন, পবিপ্রবি’র উপাচার্য ড. শামুসদ্দীন এযাবৎ যেক’জন ভিসি ছিলেন তাদেও মধ্যে অনিয়ম-দূর্ণীতিতে সবার সেরা।  তিনি আরও অভিযোগ করেন, বর্তমান ভিসি ড. শামুসদ্দীন বিশ্ববিদ্যালয়ে যোগদানের পর থেকে স্বজনপ্রীতি, অঞ্চলপ্রীতি, নিয়োগ-বাণিজ্যসহ বিএনপি-জামায়াতের পুনর্বাসন করছেন। ইউজিসির অনুমোদন ব্যতিরেকে বিধিবহির্ভূত ভাবে অন্তত: ৬১জন কর্মকর্তা-কর্মচারী নিয়োগের পায়তাড়া চালাচ্ছেন। যাদের প্রত্যেকের কাছ থেকে ৫লক্ষ থেকে ১৫লক্ষ এমকি ২৫লাখ টাকা নেয়া হয়েছে। এর আগে বিধিবহির্ভূত নিয়োগ ও পদোন্নতির কারনে এমন ৪৯জন কর্মকর্তা-কর্মচারীর বেতন-ভাতা বন্ধ করেছে ইউজিসি। জামায়াত প্রীতির দৃষ্টান্ত উল্লেখ করে তিনি বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাষা ও যোগাযোগ বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক, বিশিষ্ট শিবিরের ক্যাডার কেন্দ্রীয় জামায়াতের শুরা সদস্য জিল্লুর রহমান ঝিনাইদহে পুলিশ হত্যা মামলায় গ্রেপ্তার হলেও তাঁর বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেয়া হয়নি। প্রচলিত চাকুরী বিধি অনুযায়ী কোনো শিক্ষক-কর্মকর্তা-কর্মচারী কারাভোগ করলে তাঁকে সাময়িক বরখাস্ত করার বিধান থাকলেও এ ক্ষেত্রে তা করা হয়নি। এসব অনিয়ম-দূর্ণীতি ও ঢালাও নিয়োগ বানিজ্যের প্রতিবাদে এলাকার সাধারন মানুষের মাঝে তীব্র অসন্তোষ সৃষ্টি হয়েছে। স্থানীয় ছাত্রসংগঠন, সামাজিক সংগঠন ও সম্মিলিত নাগরিক ফোরাম নেতা-কর্মীরা প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশ, মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করে বন্ধের দাবি করে আসছেন। অলিলম্বে ভিসির এসব দূর্ণীতি আর বানিজ্যিব নিয়োগ তৎপড়তা বন্ধ না হওয়া পর্যন্ত দুর্বার আন্দোলন গড়ে তোলা হবে বলে ঘোষনা দেন। এ ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য বলেন, ‘আসলে যেসব অভিযোগ করা হয়েছে, তা সঠিক নয়। আর নিয়োগ আমি একা দিই না। এখানে নিয়োগ কমিটি রয়েছে।