পুলিশের টিএসআই‘র বিরুদ্ধে শ্রমিকদের বিক্ষোভ

0

স্টাফ রিপোর্টারঃ পটুয়াখালী সদর পুলিশ ফাড়ির ইনর্চাজ (টিএসআই) মোঃ নজরুল ইসলামের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ  মিছিল করেছে পটুয়াখালী নৌ বন্দরের শ্রমিকরা। একই সাথে তার বদলির দাবী জানিয়েছে পুলিশের উধর্তন কর্তৃপক্ষের কাছে। বুধবার সকালে পটুয়াখালী লঞ্চ টার্মিনাল চত্বরে এ কর্মসুচী পালন করা হয়।

বিক্ষোভে শ্রমিকরা বলেন, পটুয়াখালী সদর ফাড়ির ইনর্চাজ (টিএসআই) মোঃ নজরুল ইসলাম  পটুয়াখালীতে যোগদান করার পর থেকেই সাধারন মানুষের সাথে অশালীন আচরন, লঞ্চ টার্মিনালে দায়িত্ব পালনকালে ক্ষমতার অপব্যাবহার, উৎকেচ গ্রহন ও ঘাট শমিকদের সাথে দুর্ব্যবহার করে থাকেন। লঞ্চ টার্মিনালে ক্ষমতার দাপট দেখিয়ে ঘাট শ্রমিকদের কাজে অনৈতিক ভাবে বাধা প্রদান করেন, তার অনৈতিক নিদের্শ কোন শ্রমিক না মানলে তাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে থাকেন। তার ব্যবহারে ঘাট শ্রমিকসহ সাধারন মানুষ অতিষ্ট হয়ে উঠেছে।

পটুয়াখালী নৌবন্দরের ইজারাদার মোঃ ফারুক হোসেন জানান, প্রতিদিন সকালে শ্রমিকরা লঞ্চ থেকে পন্য নামিয়ে টার্মিনালে রাখলে টিএসআই টাকা দাবী করেন। তাকে টাকা না দিলে তিনি শ্রমিকদের সাথে খারাপ আচারন করেন। এমনকি আইনের মারপ্যাচ দেখিয়ে হুমকীসহ লাঠির্চাজ করে থাকেন।এছাড়াও তিনি লঞ্চের সুপার ভাইজারসহ লঞ্চ ষ্ট্যাফদের কাছে নানা অজুহাতে অর্থ হাতিয়ে নেয়। শুধু নৌ শ্রমিক নয়- শহরের অটোরিক্সাওয়ালাও তার অনৈতিক আচারনে অতিষ্ট হয়ে উঠেছেন। তিনি প্রকাশ্যে নিজেকে স্ব ঘোষিত কুকুর বলে দাবী করেন। এটা কোন পুলিশ অফিসারের কাছ থেকে জনগন আশা করেনা। আমরা তার বদলরি জন্য পুলিশ কর্মকর্তাদের কাছে জোর দাবী জানাচ্ছি। তা না হলে ঘাট শ্রমিকরা কর্মবিরতিসহ কঠোর আন্দোলনে নামবে। এসময় জেলা আওয়ামী ভারপ্রাপ্ত সাধারন সম্পাদক কাজী ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনেন। এসব অভিযোগ অস্বীকার করে টিএসআই বলেন, আমার বিরুদ্ধে একটি মহল ষড়যন্ত্র চালাচ্ছে।

এরআগে পটুয়াখালী পতিতা পল্লীর একাধিক নারীরা টিএসআই এর নির্যাতনে অতিষ্ট হয়ে একজোটে তৎকালিন সদর থানা অফিসার ইনর্চাজ তারিকুল ইসলামের কাছে বিচারের দাবী জানিয়েছিল। এছাড়াও তুচ্ছ ঘটনায় পটুয়াখালী কোষ্ট গার্ডের কমান্ডিং অফিসার জাকারিয়ার সাথে অশালিন আচরন করার অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে।

বিক্ষোভের খবর শুনে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ মাহফুজুর রহমান ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনেন এবং তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে বিক্ষোভ কারীদের আশ্বস্ত করেন।