পৌরসভা নির্বাচন-২০১৫ বরগুনায় আ’লীগের একাধীক সম্ভাব্য প্রার্থী যোগ্য প্রার্থীর সংকটে বিএনপি

13

 

Pic-1জয়দেব রায়, বরগুনা : আসন্ন পৌরসভা নির্বাচনে বরগুনার পৌরসভাগুলোতে একাধিক প্রার্থী নিয়ে বিপাকে পড়েছে আওয়ামীলীগ। অন্যদিকে যোগ্য প্রার্থীর সংকটে রয়েছে বিএনপি। এখন পর্যন্ত পৌরসভা নির্বাচনের দিনক্ষণ ঠিক না হলেও ডিসেম্বরে পৌরসভা নির্বাচনের কথা জানিয়েছে নির্বাচন কমিশন। আর এবারই দলীয়ভাবে নির্বাচন হতে যাওয়ায়, দলের মনোনয়ন পেতে জেলা ও কেন্দ্রীয় পর্যায়ের শীর্ষ নেতাদের সাথে লবিং চালিয়ে যাচ্ছেন বরগুনার পৌরসভাগুলোর সম্ভাব্য প্রার্থীরা।

বরগুনা জেলার ছয়টি উপজেলায় মোট চারটি পৌরসভা রয়েছে। এর মধ্যে বরগুনা ও আমতলী পৌরসভাকে প্রথম শ্রেণীর পৌরসভায় উন্নীত করা হয়েছে। পাথরঘাটা পৌরসভাকে উন্নীত করা হয়েছে দ্বিতীয় শ্রেণীর পৌরসভায় এবং বেতাগী পৌরসভাটি হচ্ছে তৃতীয় শ্রেণীর পৌরসভা। বর্তমানে পাথরঘাটা পৌরসভায় বিএনপি সমর্থীত মেয়র এবং বাকী তিনটি পৌরসভায় রয়েছেন আওয়ামীলীগ সমর্থীত মেয়র।

পৌরসভা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আওয়ামীলীগের দলীয় মনোনয়ন চূড়ান্ত না হওয়ায় প্রায় দু’ডজন প্রার্থী দলীয় মনোনয়নের প্রত্যাশায় নির্বাচনী মাঠে রয়েছেন। আসন্ন পৌর নির্বাচনকে কেন্দ্র করে বরগুনার সকল পৌরসভার রাস্তার মোড়ে-মোড়ে এমনকি অলিগলিও ছেয়ে গেছে এসব প্রার্থীদের ছবি সম্বলিত ডিজিটাল ব্যানার ও ফেস্টুনে।

এছাড়াও বিভিন্ন সামাজিক অনুষ্ঠানে মেয়র প্রার্থীরা অংশগ্রহণের পাশাপাশি ভোটারদের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে বিভিন্ন তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছেন। প্রার্থীদের এমন তৎপরতায় ভোটারদের মাঝে বিরাজ করছে উৎসবের আমেজ ।

এবারের পৌর নির্বাচনে এসব প্রার্থীদের নিয়ে পাড়া-মহল্লা থেকে শুরু করে চায়ের দোকানেও চলছে বিচার বিশ্লেষণ। কোন দল থেকে কে পাবেন মনোনয়ন। এদের মাঝে কে হবেন আগামীর পৌরপিতা; পৌর এলাকায় এসব নিয়ে এখন আলোচনার ঝড়। অন্যদিকে, সচেতন মহল মনে করনে, দলীয় মনোনয়নের উপরেই নির্ভর করছে এসব প্রার্থীদের জয়-পরাজয়। এছাড়াও বরগুনার পৌরসভাগুলোতে আ.লীগই আ.লীগের মূল প্রতিদ্বন্দী হবেন বলে মনে করেন তারা।

বরগুনা পৌরসভা : প্রথম শ্রেণীর এই পৌরসভার বর্তমান মেয়র বরগুনা পৌর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ শাহদাত হোসেন। বরগুনার কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার সংস্কার, রাস্তা-ঘাট ও ড্রেন-কালভার্ট সংস্কার এবং প্রশস্ত করণ, সার্কিট হাউজ ঈদগাহ মাঠ, নাথপট্টি লেক ও টাউন হল চত্বরে মহান মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি জাগানিয়া ভাষ্কর্য “অগ্নি ঝরা একাত্তর” নির্মান এবং বরগুনা পৌরসভার ক্রোক ব্রিজ থেকে টাউন হল চত্বর পর্যন্ত প্রায় এক কিলোমিটার ব্যস্ততম সড়কটিকে দু’লেনে উন্নীত করা ছাড়াও পৌর শহরে অনেক সৌন্দর্য বর্ধক কাজ করে বরগুনা পৌরসভাকে একটি অধুনিক পৌরসভায় রুপান্তর করেছেন তিনি। তার এ উন্নয়ন কর্মকান্ডে জন্য আসন্ন পৌর নির্বাচনে আওয়ামীলীগ থেকে মনোনয়ন প্রত্যাশীদের দৌড়ে অন্য প্রার্থীদের চেয়ে এক ধাপ এগিয়ে রয়েছেন তিনি।

এছাড়া প্রচারণায় নেমেছেন বরগুনা পৌরসভার সাবেক মেয়র, বরগুনা জেলা সম্মিলত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি এ্যাডভোকেট মোঃ শাহজাহান, বরগুনা জেলা আওয়ামী যুবলীগের সভাপতি এ্যাডভোকেট মোঃ কামরুল আহসান মহারাজ, জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি মোঃ হুমায়ূন করীর। জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও বরগুনা পৌরসভার প্যানেল মেয়র মোঃ রইসুল আলম রিপন এবং বিএনপি থেকে জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি ও পৌর বিএনপির সভাপতি অ্যাডভোকেট মোঃ নুরুল আমিনের নাম শোনা যাচ্ছে। তবে তিনি এখনো প্রচার-প্রচারণা শুরু করেননি। এছাড়াও সম্ভাব্য প্রার্থীদের মধ্যে রয়েছেন বরগুনার কৃতী সাংবাদিক সোহেল হাফিজ ।

 

আমতলী পৌরসভা : গত পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামী লীগের সমর্থন নিয়ে আমতলী পৌরসভার মেয়র নির্বাচিত হন আমতলী উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ মতিয়ার রহমান। তার হাত ধরেই এ পৌরসভাটি প্রথম শ্রেণীর পৌরসভার মর্যাদা লাভ করে। মেয়র মোঃ মতিয়ার রহমানে বিভিন্ন উন্নয়ন মূলক কর্মকান্ডের জন্য এবারও আওয়ামীলীগ থেকে মনোনয়ন পাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে তার। তিনি ছাড়াও সাবেক মেয়র নাজমুল আহসান নান্নু, উপজেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট এম এ কাদের, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক গাজী সামছুল হক, পৌর আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক ও আমতলী পৌরসভার প্যানেল মেয়র জি এম মুছা রয়েছেন আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশীদের মধ্যে।

আর বিএনপি প্রার্থী হিসেবে মাঠে আছেন আমতলী পৌর বিএনপি সাধারণ সম্পাদক তুহিন মৃধা। তিনি গত নির্বাচনেও বিএনপি সমর্থীত প্রার্থী ছিলেন।

বেতাগী পৌরসভা ঃ তৃতীয় শ্রেণীর এই পৌরসভার বর্তমান মেয়র বেতাগী উপজেলা আওয়ামীলীগের উপদেষ্টা মন্ডলীর সাবেক সদস্য মোঃ আলতাফ হোসেন বিশ্বাস। গত পৌর নির্বাচনে আওয়ামীলীগের সমর্থন নিয়ে বেতাগী উপজেলা পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান ও উপজেলা বিএনপি’র সভাপতি মোঃ শাহজাহান কবীর কে পরাজিত করে তৃতীয় শ্রেণীর এ পৌরসভার মেয়র নির্বাচিত হন। নির্বাচিত হওয়ার পরে তিনি বিভিন্ন কর্মকান্ডে নানা ভাবে বিতর্কিত হন। এছাড়াও আওয়ামীলীগের গ্রুপিং এর কারণে তিনি তার দলীয় পদটিও হারান। এসবের কারনে আসন্ন পৌর নির্বাচনে আওয়ামীলীগ থেকে তার মনোনয়ন পাওয়ার সম্ভাবনা ক্ষীণ। যার কারনে তিনি আসন্ন নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে অংশ গ্রহন করবেন।

মোঃ আলতাফ হোসেন বিশ্বাস ছাড়াও বেতাগী পৌরসভার সাবেক পৌর চেয়ারম্যান আবুল কাশেম, বেতাগী উপজেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ মাকসুদুর রহমান ফোরকান, উপজেলা আ’লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মোঃ খলিলুর রহমান প্রত্যাশীদের মধ্যে রয়েছেন।

এছাড়াও বিএনপি প্রার্থী হিসেবে দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশীদের মধ্যে নির্বাচনী মাঠে আছেন বেতাগী পৌর বিএনপি যুগ্ম-আহবায়ক মোঃ জাহাঙ্গীর কবীর ও মোঃ হুমায়ুন কবীর এবং কেন্দ্রীয় যুব দলের সদস্য মোঃ কামারুজ্জামান মিলন। এছাড়া সম্ভাব্য প্রার্থী হিসেবে জাতীয় পার্টির নাসির উদ্দীন পিযুষ ও স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে হাফেজ মাহবুবুর রহমান রয়েছেন।

 

পাথরঘাটা পৌরসভা : দ্বিতীয় শ্রেণীর এই পৌরসভার বর্তমান মেয়র মল্লিক মোঃ আইউব। গত নির্বাচনে তিনি বিএনপির সমর্থন নিয়ে আওয়ামীলীগ সমর্থীত প্রার্থী আনোয়ার হোসেন আকনকে পরাজিত করে মেয়র নির্বাচিত হন। নির্বাচিত হওয়ার পর তিনিও বিভিন্ন কর্মকান্ডে নানা ভাবে বিতর্কিত হন। তার বিরুদ্ধে স্বজন প্রীতি, চাঁদাবাজী, টেন্ডার ও পৌর তহবিলের অর্থ আতœসাৎসহ বিভিন্ন অভিযোগ এনে অনাস্থা দিয়েছিলো পাথরঘাটা পৌরসভার সকল কাউন্সিলররা। এসবের কারণে সংবাদ শিরনামও হয়েছিলেন তিনি। এমন কর্মকান্ডে তার প্রতি আস্থা হারিয়েছেন জেলা বিএনপির নেতা-কর্মীরাও। যার কারণে আসন্ন পৌর নির্বাচনে বিএনপি থেকে তার মনোনয়ন পাওয়ার সম্ভাবনা কম। দলীয় মনোনয়ন না পেলে তিনি আসন্ন নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে অংশ গ্রহন করবেন, এমন গুঞ্জনও শোনা যাচ্ছে।

এছাড়াও ছোট্ট এই পৌরসভায় আসন্ন নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আওয়ামীলীগের তিনজন প্রার্থী দলীয় মনোনয়নের প্রত্যাশায় নির্বাচনী মাঠ দাপিয়ে বেড়াচ্ছেন। তারা হচ্ছেন, পাথরঘাটা উপজেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি মোঃ আনোয়ার হোসেন আকন, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এ্যাডভোকেট মোঃ জাবির হোসেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মোঃ বেলায়েত হোসেন।

এছাড়াও নির্বাচনী মাঠে আছেন, পাথরঘাটা পৌর বিএনরি যুগ্ম-আহবায়ক ও বিএনপি চেয়ার পার্সনের উপদেষ্টা এ্যাভোকেট খন্দকার মাহবুবুর রহমানের ¯েœহভাজন এ্যাডভোকেট মোঃ মুনিরুজ্জামান সবুজ, পাথরঘাটা উপজেলা বিএনপির উপদেষ্টা ও পাথরঘাটা উপজেলা পরিষদের সাবেক মহিলা ভাইস চেয়াম্যান মোসাঃ মরিয়ম চৌধুরী জেবু, এবং জেলা বিএনপির সদস্য ও পাথরঘাটা পৌর বিএনপির সাবেক সভাপতি মোঃ সাহাবুদ্দীন সাকু। আর সম্ভাব্য প্রার্থীদের মধ্যে রয়েছেন চৌধুরী মোঃ মুনির।

আসন্ন পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন সম্পর্কে বরগুনা জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদ প্রশাসক মোঃ জাহাঙ্গীল কবীর জানান, কেন্দ্র থেকে কোন নির্দেশনা না পাওয়ায় পৌরসভা নির্বাচন নিয়ে এখন পর্যন্ত তারা কোন সিদ্ধান্ত গ্রহন করেননি। কেন্দ্র থেকে নির্দেশনা পাওয়ার পরই তারা প্রার্থীদের তালিকা তৈরি করবেন বলে জানান তিনি।

এ বিষয়ে জেলা বিএনপির সাধারণ স¤পাদক মোঃ ফারুক মোল্লা জানান, পৌর নির্বাচনে বিএনপিতে প্রার্থী সংকট নেই। তিনি আরও জানান, ইতোমধ্যেই বিএনপি সমর্থিত প্রার্থীদের তালিকা তৈরি করা হয়েছে। এখন শুধু কেন্দ্রীয় নির্দেশনা আর সিদ্ধান্তের ব্যাপার মাত্র। বিএনপি সমর্থিত প্রার্থীরা নির্বাচনে অংশগ্রহণের জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলেও জানান তিনি।