প্রকাশ্যে চার মহিলাকে বিবস্ত্র করে পিটিয়েছে সন্ত্রাসীরা: গ্রেপ্তার-১

2

অতুল পাল,বাউফল প্রতিনিধিঃ পটুয়াখালী বাউফলের মাধবপুর বাজারে হত্যা মামলার এক আসামীর নেতৃত্বে প্রকাশ্যে ৪ মহিলাকে বিবস্ত্র করে পেটানো হয়েছে। এ সময় পরিবারে ৬টি দোকান ঘরে হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাংচুর ও লুটপাট করা হয়। সোমবার সন্ধ্যার দিকে এ ঘটনা ঘটেছে। পুলিশ ঘটনার সাথে জড়িত থাকার সন্দেহে আল আমিন নামের একজনকে গ্রেপ্তার করেছে।

স্থানীয় সুত্রে জানাগেছে, আদাবাড়িয়া ইউনিয়নের সাবপুরা বাজার এলাকায় সঞ্জিব ওঝা গংদের সাথে প্রতিবেশী ছালাম হাওলাদার গংদের দীর্ঘদিন ধরে জমি নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। এ সংক্রান্ত একটি মামলা আদালতে বিচারধিন রয়েছে। বাজারের প্রধান সড়কের পাশে সঞ্জিব ওঝা ও তার অপর দুই ভাই শংকর ওঝা ও বঙ্কিম ওঝার ৬টি দোকান ঘর রয়েছে। ঘটনার দিন সন্ধ্যা সাড়ে৭ টার দিকে ছালাম হাওলাদার, তার ভাই কালাম ও আলমগীরের নেতৃত্বে ২০/২৫ জন ভাড়াটে সন্ত্রাসীরা বিভিন্ন অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে ভাড়া দেয়া ওইসব দোকান ঘরগুলো দখল করতে হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাংচুর ও লুটপাট করে। এসময় বাধা দেয়ায় সন্ত্রাসীরা সুখ রঞ্জন, ফারুক মোল্লা, শংকর সমাজপতি, বঙ্কিম, সঞ্জিব, শংকর ও পবিত্র ওঝাকে পিটিয়ে জখম করে। এ খবর পেয়ে বাড়ি থেকে বঙ্কিম চন্দ্রের মা মঞ্জু রানী (৪৭), স্ত্রী শোলেকা রানী (২৬), গৌতম চন্দ্রের স্ত্রী দ্বিভা রানী (৪২) ও পবিত্র চন্দ্রের স্ত্রী রেভা রানী (২২)  ঘটনাস্থলে ছুটে এলে সন্ত্রাসীরা তাদেরকে প্রকাশ্যে বিবস্ত্র করে  পেটায়। এ সময় স্থানীয় লোকজন ঘটনা প্রত্যক্ষ করলেও ভয়ে কেউ এগিয়ে আসেনি। এ ঘটনায় ১১ জন আহত হয়েছে। এদের মধ্যে বঙ্কিম ওঝা ও মঞ্জু রানীকে আশংকাজনক অবস্থায় ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট পটুয়াখালী হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। রাত ১০ টার দিকে পুলিশ গিয়ে ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে আলআমিন (২৫) নামের একজনকে  গ্রেপ্তার করেছে। উল্লেখ, এ হামলার নেত্বত্বে থাকা ছালাম হাওলাদার আদাবাড়িয়া ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবকলীগ সভাপতি আশ্রাফ ফকির হত্যা মামলার ৩৯ নম্বর আসামী। এ ঘটনায় মঙ্গলবার বাউফল থানায় একটি মামলা হয়েছে।