প্রতারনার ফাঁদে আমেরিকান বাঙ্গালি তরুনী

8

অতুল পাল, বাউফল বিশেষ প্রতিনিধি: প্রতারক স্বামীর খোঁজে বাউফলে এসেছেন সানজিদা চৌধুরী (২০) নামের শারিরিক প্রতিবন্ধী আমেরিকান এক বাঙ্গালি তরুনী। ধনাঢ্য ওই মেয়েটি চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আ.জ.ম. নাসির উদ্দিনের নিকট আত্মীয় এবং তার বাবা মোতালেব চৌধুরী আমেরিকার ফ্লোরিডার গোয়েন্দা পুলিশের একজন কর্মকর্তা বলে জানা গেছে। বাউফল  ও দশমিনা থানার সুপারিশে মেয়েটি বর্তমানে বাউফলের দাশপাড়া ইউনিয়নের মেম্বর হানিফ সরদারের বাড়িতে অবস্থান করছেন।

সানজিদা চৌধুরী স্থানীয় সাংবাদিকদের জানান, সে জন্মসূত্রে আমেরিকান নাগরিক। সেখানে ২৭২৭ এ্যানড্রু এভিনিউ, এএফটি- লর্ডারএডেল, জিপ কোড নম্বর ৩৩৩৫৫৫, এ্যপার্টমেন্ট নম্বর ২২৪, ফ্লোরিডায় থাকেন। সে আমেরিকার অক্সফোর্ড স্কুল এন্ড ইউনিভার্সিটি থেকে “ও” এবং “ইলেভেন” পাশ করেছেন। ঢকার বারিধারায় নিউ ডিওএসএইচ এর ৪ নম্বর সড়কের ২৯৩ নম্বর বাড়িটি তাদের। এছাড়া চট্টগ্রামেও তার তিনটি বাড়ি রয়েছে। ২০০৫ সালে তার মা মারা যান। মেয়েটি ২০১৬ সালের ২৬ অক্টোবর ঢাকায় আসেন। তার বাবা মোতালেব চৌধুরী ৭ মাস আগে ভোলা জেলায় ফরিদা বেগম নামের এক মহিলাকে বিয়ে করার পর থেকে তার সাথে সম্পর্কের অবনতি ঘটে। এক পর্যায়ে মেয়েটি ঢাকাতে আতœহত্যা করতে গেলে নজরুল ইসলাম (৩২) নামের এক সিএনজি চালক তাকে উদ্ধার করে। এরপর থেকে তাদের মধ্যে সম্পর্ক গড়ে ওঠে এবং সানজিদার অর্থ-বিত্তবৈভবের কথা জেনে তাকে বিয়ে করার প্রস্তাব দিলে চলতি বছরের ২৮ ফেব্রুয়ারি ঢাকার একটি আদালতের মাধ্যমে তাদের বিয়ে হয়। বিয়ের কাবিন নামায় নজরুলের পিতার নাম আলী হোসেন মাতব্বর, পূর্ব আলী পুরা, দশমিনা লেখা রয়েছে। কিন্তু নজরুল বাউফলের কালাইয়া থাকেন বলে সানজিদাকে জানিয়েছেন। সানজিদা জানান, গত ২৮ মার্চ সকালে নজরুল বিশ লাখ টাকা, একটি আই ফোন, সানজিদার পাসপোর্ট ও এসএস কার্ড (নম্বর: ৫৬১৯২৯৯৮৬৪৫৩২১) নিয়ে পালিয়ে আসে। রাত পর্যন্ত   নজরুল ঘরে না ফেরায় সানজিদা বাউফলের ঠিকানায় এসে থানায় যোগাযোগ করেন। মেয়েটি প্রতিবন্ধী হওয়ায় পুলিশ দাশপাড়া ইউনিয়নের মেম্বর হানিফ সরদারের জিম্মায় রাখেন। সেখান থেকে মেয়েটি আমেরিকান দুতাবাসের ০২-৫৫৬৯২০০০ নম্বরে বারবার যোগাযোগের চেষ্টা করছেন।

সানজিদা জানায়, চট্টগ্রামের মেয়র আ.জ.ম. নাসির উদ্দিন তার আপন চাচা। সানজিদার বাবা মোতালেব চৌধুরী মেয়ের দুরাবস্থার কথা জেনে গতকালই আমেরিকা থেকে ঢাকায়  এসেছেন এবং বাউফলের উদ্দেশ্যে রওয়ানা হয়েছেন বলে জানা গেছে। বাউফল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আযম খান ফারুকী জানান, মেয়েটির দেয়া ঠিকানা দশমিনা উপজেলায় হওয়ায় তাকে ওই থানায় পাঠানো হয়েছিল। কিন্তু প্রতিবন্ধী হওয়ায় ওই থানার পুলিশ বাউফলের হানিফ মেম্বরের জিম্মায় দিয়েছেন। এদিকে সানজিদার দেয়া ঠিকানা মোতাবেক নজরুলের স্থায়ী ঠিকানা খুঁজে পেলেও তাদের ঘর তালাবদ্ধ অবস্থায় পাওয়া গেছে বলে দশমিনা থানা পুলিশ জানিয়েছেন। বাউফল ও দশমিনা থানার পুলিশ জানিয়েছেন, সানজিদার দেয়া তথ্য গুরুত্ব সহকারে যাচাই-বাছাই করে দেখা হচ্ছে।