বঙ্গোপসাগরে গনডাকাতি ॥ শতাধিক জেলে ট্রলারসহ মুক্তিপণের দাবিতে অপহরন ৬ জেলেকে গুলিবিদ্ধ উদ্ধার

0

 

pic-1

কুয়াকাটা প্রতিনিধি ঃ বঙ্গোপসাগরে মাছধরা ট্রলারে গনডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। জেলেদের গুলি করে ট্রলারসহ শতাধিক জেলে অপহরন ও মুক্তিপন দাবির খবর পাওয়া গেছে। আজ মঙ্গলবার সকাল ৮ টার দিকে মৎস্য বন্দর আলীপুরের মাসুদ মোল্লার মালিকানাধীন এফবি জাহানারা ট্রলারটি গুলিবিদ্ধ ৬ জেলেসহ ঘাটে ফিরলে এর বিস্তারিত খবর পাওয়া যায়। এফবি জাহানারা ট্রলারের ওই গুলিবিদ্ধ জেলে আসন আলী (৩০) মান্নান মৃধা (৩০), আমির হোসেন (৩১), শাহআলম (৪০), ফয়জাল (৩০) ও কাইয়ুম (৩০) কে কুয়াকাটা ২০ শয্যা হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

 

মঙ্গলবার ভোর রাতের দিকে কুয়াকাটা সংলগ্ন এবং এর আশেপাশের এলাকায় এ গনডাকাতির ঘটনা ঘটেছে বলে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন জেলেরা দাবি করেছেন। একই সময় আলীপুরের আবুল কোম্পানীর মালিকানাধীন এফবি আল মদীনা ট্রলারের আঃ রব মাঝীকে সহ ট্রলারটি নিয়ে যায় ডাকাতরা। সেই সাথে কুয়াকাটা আলীপুর মৎস্য আড়তদার সমিতির সভাপতি আনছার উদ্দিন মোল্লার মালিকানাধীন ট্রলার এফবি মার্জিয়া আক্তার রীমা সহ ওই ট্রলারের জেলে নয়া মিয়া, আল-আমিন ও আবুল কালামকে তুলে নিয়ে গেছে। এসময় ডাকাতরা মুক্তিপণ দাবি করেছেন জেলেদের মাধ্যমে ট্রলার মালিকদের কাছে। তবে কত টাকা দাবি করা হয়েছে তা স্পষ্ট নয় বলেও এসব তথ্য আড়তদার সমিতির সভাপতি আনছার উদ্দিন মোল্লার।

 

আলীপুরের ট্রলার মালিক জয়নাল আকন জানান বলেন, ‘অবরোধ শেষে হওয়ায় মৎস্য বন্দর আলীপুর থেকে শতাধিক মাছধরা ট্রলার ইলিশ শিকারের উদ্দেশ্যে বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করছে। আমার ধরনা শতাধিক জেলে অপহরণের শিকার হয়েছে।’

 

মহিপুর মৎস্য আড়তদার সমিতির সাধারণ সম্পাদক নিমাই চন্দ্র দাস বলেন, ‘সাগরে গনডাকাতি হয়েছে। আমাদের এখানকার সব ট্রলারই এখন সাগরে। শতাধিক জেলে অপহরণের ঘটনা ঘটেছে বলেই আমাদের অনুমান।’

 

কলাপাড়া থানার ওসি মোহাঃ আজিজুর রহমান এ প্রসেঙ্গ বলেন, ‘আমি জেলেদের ওপর হামলা চলাকালে খবর পেয়ে পাথরঘাটা থানাকে এবং কোস্টগার্টকে অবহিত করেছি। মঙ্গলবার ভোর রাতের দিকে এ ডাকাতির ঘটনাটি ঘটেছে বঙ্গোপসাগরের পাথরঘাটা থানা এলাকায়। এটি কুয়াকাটা সংলগ্ন কোন এলাকার ঘটনা নয়।’