বঙ্গোপসাগরে ঝড়ের কবলে পড়ে দু’টি ট্রলার ডুবি পাঁচটি ট্রলারসহ নিঁেখাজ ৬৫ জেলে

0

 

সোলায়মান পিন্টু,কলাপাড়া প্রতিনিধিঃ কুয়াকাটা সংলগ্ন গভীর বঙ্গোপসাগরে দূর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার কবলে পরে মৎস্যবন্দর আলীপুর- মহিপুরের ৬৫ জেলে নিঁেখাজ থাকার খবর পাওয়া গেছে। মহিপুর আড়ৎদার সমিতির সভাপতি ফজলু গাজী জেলেদের বরাদ দিয়ে জানিয়েছেন, রোববার শেষ বিকেল পর্যন্ত পাঁচটি মাছ ধরার ট্রলারসহ নিঁেখাজ ৬২ জেলে  এবং শনিবার দু’টি মাছধরা ট্রলার ডুবির ঘটনায় নিখোঁজ রয়েছে তিন জেলে। এখন পর্যন্ত এ অঞ্চলের ৬৫ জেলে নিঁেখাজ রয়েছে।

কলাপাড়া উপজেলা ফিশিং ট্রলার মাঝি সমিতি সূত্রে জানা গেছে, প্রজনন মৌসুমের পর কয়েক হাজার জেলে এক সপ্তাহের প্রস্তুতি নিয়ে গভীর সমুদ্রে যায়। আকস্মিক ঝড়ের কবলে পড়ে মৎস্য বন্দর আলীপুরের ইউসুফ কোম্পানির মালিকাণাধীন এফবি তামান্না ট্রলারের ১৮ জেলে, মহিপুর আড়তের জয়দেব বাবুর মালিকাধীণ এফবি মা-বাবা ট্রলারের ২০ জেলে, এফবি তোতা ট্রলারের ১৪ জেলে, নামবিহীন দুটি ট্রলারের ১০ জেলেসহ পাঁচটি মাছ ধরার ট্রলার নিখোঁজ রয়েছে।

ডুবে যাওয়া এফবি শুকতারা-০২ ট্রলারের মালিক আব্দুল কাদের মাঝি জানান, তার এফবি শুকতার-২ নামের ট্রলারটি শনিবার রাতে  ১৭ জেলে নিয়ে সমুদ্রে ডুবে যায়। এফবি ভাইভাই ট্রলারটি জেলেদের উদ্ধার করে উপকূলে ফেরার পথে সেটিও  ডুবে যায়। এসময় অপর একটি মাছধরা ট্রলার এফবি মহসিন আউলীয়া ডুবে যাওয়া দুই ট্রলারের ভাসমান ৩৩ জেলের মধ্যে ৩০ জেলেকে উদ্ধার করতে সক্ষম হলে তিন জেলের রোববার শেষ বিকেল পর্যন্ত হদিস মেলেনি বলে ওই দুই  ট্রলার মালিকরা দাবী করেছেন।

এছাড়া সাগর উত্তাল থাকায় ডুবে যাওয়া মাছধরা ট্রলার দুটি এবং মাছধরা কোন সরঞ্জাম উদ্ধারে কোন পদক্ষেপ নেওয়া সম্ভব হয়নি বলে তারা জানিয়েছেন।