বরগুনার তালতলীতে দেবরের হাতে গৃহবধূ খুন

5

 

কে এম সোহেল, আমতলী : বরগুনার তালতলীতে ভাবিকে কুপিয়ে হত্যা করেছে দেবর হাবিব খাঁ। সোমবার সকালে পারিবারিক কলহের জের ধরে গৃহবধূ তানিয়া আক্তারকে দা দিয়ে কুপিয়েছেন তিনি। তালতলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বাবুল আখতার জানান, তালতলী উপজেলার ইদুপাড়া নিবাসী মন্নান খায়ের মৃত্যুর পরে তার ২ ছেলে দুলাল খা ও হাবিব খা একই ঘরে তাদের মাকে নিয়ে বসবাস করতেন। হাবিব খা পটুয়াখালী সরকারি কলেজে দ্বাদশ শ্রেনীতে পড়ে। গত দু’দিন আগে বাড়ি এসে সে তার মাকে নিয়ে আলাদাভাবে বসবাসের দাবী জানায়। বড় ভাই দুলাল তার ছোট ভাইকে বলে তার পক্ষে দুটো পরিবারকে টাকা দেয়া সম্ভব নয়। আলাদাভাবে বসবাস করতে হলে তাদেরই আয় করে চলতে হবে। এসব বিষয়ে কথা কাটাকাটির সূত্রধরে হাবিব তার বড় ভাইয়ের কথায় ক্ষুব্ধ হয়ে ভাবীকে হত্যার পরিকল্পনা করে। সোমবার সকালে ঘুম থেকে উঠে তানিয়া হেউলিপাতার হোগলা বুনছিলো। হঠাৎ করেই হাবিব একটি ধারালো দা দিয়ে তানিয়ার ঘাড়ে কোপ বসিয়ে দেয়। এসময় আরো একটি কোপ তানিয়ার বুকে লাগে। মূমুর্ষূ অবস্থায় তানিয়াকে প্রথমে আমতলী হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখান থেকে পটুয়াখালী নেয়া হলেও তানিয়াকে আর বাঁচানো যায়নি। ঘটনার পর থেকে তানিয়ার শাশুড়ী কুলসুম বেগম ও দেবর হাবিব পলাতক রয়েছে। এ ঘটনায় তালতলী থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। তানিয়ার স্বামীর নাম দুলাল খা। তাদের দু’টো ছেলে সন্তান রয়েছে। ঘটনার সময় ওই গৃহবধূর স্বামী বঙ্গোপসাগরে মাছ ধরছিলো।