বাউফলে অজ্ঞাত এক তরুনীর খোঁজ

4

অতুল পাল,বিশেষ প্রতিনিধি: বাউফলে হাজেরা চৌধুরী নামের অজ্ঞাত এক তরুনীর খোঁজ পাওয়া গেছে। মানিকগঞ্জের সিংহেরাকাঠ উপজেলার বনধারা কোরিপাড়া এলাকা মজিবুর রহমানের মেয়ে বলে সে নিজেকে পরিচয় দিচ্ছে। কখনো হাজেরা রানী আবার কখনো হাজেরা চৌধুরী বলে নিজের নাম বলছে তরুনী। বয়স আনুমানিক ২২ বছর হবে। তরুনীটিকে মানসিক ও শারিরিকভাবে বিধস্ত দেখা গেছে। পুলিশের অনুমতি সাপেক্ষে ওই তরুনীকে স্থানীয় এক হোটেল মালিকের বাড়িতে আশ্রয় দেয়া হয়েছে।

জানা গেছে, শুক্রবার সকালে দুই যুবক তাকে বাউফল পৌর শহরের থানা ব্রিজের কাছে রোশনে আলীর খাবার হোটেলে নিয়ে খাবার খাওয়ান। পরে যুবকরা আবার তাকে নিয়ে যায়। পর দিন শনিবার সকালে ওই তরুনী একা রোশনে আলীর হোটেলে এসে ক্ষুধার্ত বলে খাবার চায়। হোটেল মালিক রোশনে আলী জানান, তরুনীকে মানসিক ও শারীরিক বিধস্ত দেখাচ্ছিল। রোশনে আলীর ধারণা তার ওপর পাশবিক নির্যাতন চালানো হয়েছে। শনিবার খাবার শেষে তরুনীটি তার কাছে আশ্রয় চায়। মানবিক দিক বিবেচনা করে ওই তরুনীকে তার বাড়িতে আশ্রয় দেন। সেই থেকে তরুনীটি তার আশ্রয়ই আছে। মঙ্গলবার দুপুরে স্থানীয় সাংবাদিকরা রোশনে আলীর খাবার হোটেলে গিয়ে ওই তরুনীর সাথে কথা বলেন। এসময় ওই তরুনী অসংলগ্ন কথাবর্তা বলছিল। সে নিজেকে কখনো হাজেরা রানী আবার কখনো হাজেরা চৌধুরী নামে পরিচয় দিচ্ছিলেন। কারা কিভাবে তাকে এখানে নিয়ে এসেছেন তা বলতে পারছেনা। তবে ওই তরুনী অসংলগ্ন কথাবার্তা বললেও খুব শুদ্ধ ভাবেই বলছিলেন। এসময় রোশনে আলী ঝামেলা এড়াতে বাউফল থানার ওসিকে বিষয়টি অবহিত করেন। অবহিত হওয়ার পর ওসি আযম খান ফারুকী ঘটনাস্থলে এসআই টিপু লাল দাসকে পাঠান। ওসি জানিয়েছেন, আমরা তার দেয়া তথ্য  যাচাই বাচাই  করে দেখছি। প্রকৃত ঘটনা উদঘাটন না হওযা পর্যন্ত ওই তরুনীকে হোটেল মালিকের বাড়িতে রাখার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।