বাউফলে আইন-শৃংখলার অবনতি আশংকাজনক হারে বাড়ছে চুরি ও ডাকাতি

2

333অতুল পাল, বিশেষ প্রতিনিধি: চলতি মাসের প্রথম ১০ দিনের মধ্যে বাউফলে কয়েকটি দুর্ধর্ষ চুরি ও ডাকাতির ঘটনায় আইন-শৃংখলার চরম অবনতি হয়েছে। এরফলে সাধারন মানুষ আতংকের মধ্যে রয়েছে। পুলিশ প্রশাসন বিষয়গুলোকে ক্ষতিয়ে দেখছেন বলে জানিয়েছেন।

সূত্র জানায়, গত ৬ জানুয়ারী কাছিপাড়া ইউনিয়নের উত্তর কাছিপাড়া, কাছিপাড়া লঞ্চঘাট ও পাকডাল গ্রামে একই রাতে তিন বাড়িতে ডাকাতি হয়। ডাকাত দল ডাকাতিকালে নগদ টাকা, স্বর্নালংকার, দলিল-দস্তাবেজ লুট সহ মহিলা ও শিশুদের ওপর অমানবিক নির্যাতন করেছে। গত ৮ জানুয়ারী দুর্বৃত্তরা কালিশুরী কলেজের অফিস কক্ষের গ্রিল কেটে ভেতরের আলমিরা ভেঙ্গে জরুরী কাগজপত্র নিয়ে যায়। গত ১০ জানুয়ারী গভীর রাতে বিড়পাশা হাই স্কুলের প্রধান শিক্ষকের কক্ষ চুরি হয়। চোরের দল ওই স্কুলের আলমিরা ভেঙ্গে একটি ল্যাপটপ, নগদ ৪৩ হাজার টাকা, চেক বই, এফডিআর ও অন্যান্য কাগজপত্র নিয়ে যায়। প্রত্যেকটি ঘটনার পরই পুলিশের উর্ধতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। ক্ষতিগ্রস্থরা বাউফল থানায় অভিযোগ দায়ের করলেও পুলিশ এখনো কোন ঘটনারই কুল কিনারা করতে পারছেন না। হঠাৎ করে বাউফলে এধরণের ঘটনা বৃদ্ধি পাওয়ায় জনমনে আশংকার সৃষ্টি হয়েছে। বাউফল থানার অফিসার ইন চার্জ আ জ ম মাসুদুজ্জামান জানান, ৫ লাখ মানুষ অধ্যূষিত বাউফলে বিচ্ছিন্ন দু’একটি ঘটনা ঘটতে পারে। এজন্য আইন-শৃংখলার কোন অবনতি ঘটেনি। স্কুল ও কলেজের ঘটনাগুলো তাদের অভ্যন্তরীন কোন বিরোধকে কেন্দ্র করে হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। কাছিপাড়ায় ডাকাতির বিষয়ে তিনি বলেন, বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে দেখা হচ্ছে। ইতিমধ্যে সন্দেহভাজনদের গতিবিধির ওপর লক্ষ্য রাখা হচ্ছে। আশা করছি ঘটনাগুলোর সাথে জড়িতদের দ্রুত আইনের আওতায় আনতে পারবো।