বাউফলে আসামি গ্রেপ্তারে টাকা চাওয়ার অভিযোগ

0

অতুল পাল,বিশেষ প্রতিনিধি: বাউফল থানায় বিবাদমান দু’পক্ষের দায়ের করা মামলায় পুলিশ এক পক্ষের আসামিকে গ্রেপ্তার করলেও অপর পক্ষের আসামি গ্রেপ্তারে টাকা দাবি করেছেন বলে এক এসআই এর বিরুদ্ধে অভিযোগ পাওয়া গেছে। তবে পুলিশ ওই অভিযোগ অস্বীকার করে আসামি গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে বলে জানিয়েছেন।

জানা গেছে, গত ৪ জুন বাউফলের নুরাইনপুর বাজারের দক্ষিণ পাশে বিরোধপূর্ণ জমিতে ঘর নির্মাণ নিয়ে স্থানীয় আলম  বেপারি গং ও রুবেল গংদের সঙ্গে সংঘর্ষ হয়। এতে উভয় পক্ষের ৪ জন আহত হয়। ঘটনার পর প্রথমে রুবেল বাদী হয়ে আলম  বেপারিসহ ৭ জনকে আসামি করে বাউফল থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। এরপর আলম বেপারি বাদি হয়ে রুবেলসহ ৬ জনকে আসামি করে পাল্টা একটি মামলা দায়ের করেন। সংঘর্ষের সময় জখম হওয়া আলম বেপারির ফুফাতো ভাই এবং রুবেলের মামলার আসামি রেজাউল বাউফল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য ভর্তি হলে মামলার তদন্তকারি কর্মকর্তা এসআই মনির হোসেন চিকিৎসাধীন অবস্থায় তাকে গ্রেপ্তার করেন। কিন্তু আলম বেপারির মামলার আসামিদের গ্রেপ্তারের কোন চেষ্টাই করেননি। মঙ্গলবার আলম বেপারি সাংবাদিকদের কাছে অভিযোগ করে বলেন, পুলিশ তার প্রতিপক্ষের কাছ থেকে মোটা অংকের ঘুষ নিয়ে অমানবিক আচরণ করে রেজাউলকে গ্রেপ্তার করেছেন। অথচ তার মামলার আসামি রুবেল গংগণ প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়ালেও পুলিশ তাদের গ্রেপ্তার করছেনা। তিনি বলেন, আসামি গ্রেপ্তারের জন্য এসআই মনির হোসেন তার কাছে ৫ হাজার টাকা অগ্রিম দাবি করেছেন। এসআই মনির ওই অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, আলম বেপারির মামলাটি পরে হওয়ায় আসামিরা গা-ঢাকা দিয়েছে। তবে তাদেরকেও গ্রেপ্তারের চেষ্টা অব্যহত আছে।

বাউফল থানার অফিসার ইনচার্জ আযম ফারুকী জানান, শান্তি-শৃংখলা বজায়ের স্বার্থে দুটি মামলার আসামিদেরকেই গ্রেপ্তার করার জন্য তদন্তকারি কর্মকর্তাকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।