বাউফলে গণধর্ষনের শিকার তরুনী ধর্ষকদের ভয়ে হাসপাতাল থেকে পালিয়ে গেছে

0

বিশেষ প্রতিনিধি : ধর্ষকদের ভয়ে হাসাপতাল থেকে পালিয়ে গেছে বাউফলে গণ ধর্ষণের শিকার এক তরুনী। । গত রোববার চন্দ্রদ্বীপ ইউনিয়নের চর মিয়াজান এলাকায় ওই তরুনী গণ ধর্ষনের শিকার হয়। মূমূর্ষ অবস্থায় তাকে বাউফল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হলেও ধর্ষকদের ভয়ে সে পালিয়ে গেছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার কালাইয়া ইউপির আয়নাবাজ কালাইয়া গ্রামের মানিক মৃধার ছেলে আল ইসলামের(৩০) সাথে পার্শ্ববর্তী দশমিনা উপজেলার আলিপুরা ইউনিয়নের জাফরাবাদ গ্রামের পঞ্চম আলী ফকিরের তরুনী মেয়ের (১৬) মধ্যে দীর্ঘদিন পর্যন্ত প্রেম চলে আসছিল। আল ইসলাম বিবাহিত থাকায় তাকে কখনো বাড়ি আনতে রাজি হয়নি। গত ২৩ জানুয়ারি আল ইসলাম ও তার ভগ্নিপতি সুজন ওই তরুনীকে তার বাড়ি থেকে তুলে এনে চন্দ্রদ্বীপ ইউনিয়নের বাসিন্দা আল ইসলামের অপর এক ভগ্নিপতি জাকির বেপারির ঘরে নিয়ে রাখে। তরুনীর বাবা এ খবর পেলে তার অনুরোধে ওই চরের বাসিন্দা মিজান ডাক্তার রোববার সকালে তরুণীকে তার নিজের বাড়ি এনে রাখেন। এ ঘটনা জানাজানি হলে স্থানীয় করিম খাঁর ছেলে সেলিম(২২) ও ইয়াকুফ খাঁর ছেলে হাসান(২৫) মিজার ডাক্তারের ঘর থেকে ওই তরুনীকে ছিনিয়ে নিয়ে চর মিয়াজান আওয়ামী লীগ অফিসে নিয়ে তার শ্লিলতাহানি করে। সন্ধার দিকে তরুনীটি জ্ঞান হারালে তাকে ট্রলারযোগে বাউফল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়া হয়। হাসপাতালের জরুরী বিভাগে তাকে অসুস্থ হিসেবে ভর্তি দেখানো হলেও সোমবার তাকে হাসপাতালে পাওয়া যায়নি। একটি সূত্র জানিয়েছেন, ধর্ষকদের ভয়ে তরুনীটি পালিয়ে গেছে। তবে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ মেয়েটিকে ধর্ষন করা হয়েছে কিনা তা সঠিকভাবে বলতে পারেননি। বাউফল থানার অফিসার ইনচার্জ আ জ ম মাসুদুজ্জামান জানান, এধরনের কোন অভিযোগ পাওয়া যায়নি। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।