বাউফলে গণশৌচাগার দখল করে ‘ডিজিটাল জেনারেটর সার্ভিস’

4

ডেস্ক রির্পোট ঃ পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলার কালাইয়া বন্দরের বাজার গরুর হাট এলাকায় সরকারি জায়গায় নির্মিত একটি গণশৌচাগার দখল করে ‘ডিজিটাল জেনারেটর সার্ভিস’ নামে একটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খুলেছেন মোঃ চুন্নু নামে এক ব্যাক্তি। স্থানীয় প্রভাবশালীদের ম্যানেজ করে প্রায় এক বছর ধরে তিনি ওই গণশৌচাগারটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান হিসেবে ব্যবহার করছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

বাউফল উপজেলার সবচেয়ে বড় হাট কালাইয়া, জনসাধারনের সুবিধার্থে হাটের গুরুত্বপূর্ণ জায়গায় নির্মাণ করা হয় এ গণশৌচাগারটি। কিন্ত প্রভাবশালীদের প্রত্তক্ষ্য হস্তক্ষেপে গনশৌচাগারটির সুবিধা পাচ্ছেনা সাধারন মানুষ।

মো. মাসুম নামে এক ব্যক্তি বলেন,‘জনস্বার্থে গণশৌচাগারটি নির্মাণ করা হলেও ব্যবহৃত হচ্ছে ব্যক্তি স্বার্থে।’ তিনি আরও বলেন,এটি দখল হয়ে যাওয়ায় বিপাকে পড়তে হচ্ছে হাটে আসা ক্রেতা-বিক্রেতা সহ স্থানীয় ব্যবসায়ীদের।

অভিযোগ রয়েছে এই চুন্নু মিয়া পল্লী বিদ্যুতের মাঠ পর্যায়ের একাধিক কর্মীদের সাথে অনৈতীক সখ্যতা গড়ে মাছ বাজার ও কাঁচা বাজার এলাকার বিভিন্ন অস্থায়ী দোকানে অবৈধ বিদ্যুৎ সংযোগ দিয়ে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে।

অবশ্য বিদ্যুতের বিষয়টি অস্বীকার করে চুন্নু মিয়া বলেন, এই গণশৌচাগারটি ব্যবহার করলে দুর্গন্ধ ছড়িয়ে পড়ে। এতে পাশের মাদ্রাসার শিক্ষার্থী ও শিক্ষকদের ক্ষতিসাধন হয়। এ কারনে তিনি গণশৌচাগারটি ব্যবহার করে জেনারেটরের ব্যবসা করছেন। সরকারী সম্পত্তি কোন প্রকার অনুমতি না নিয়ে আপনি এ ভাবে দখল করতে পারেন কিনা ? এমন প্রশ্নের জবাবে চুন্নু বলেন, পারছি করছি , কোন সমস্যা? শোনেন আমি হইলাম সব সরকারের সরকার।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোহাম্মদ আবদুল্লাহ আল মাহমুদ জামান বলেন,‘বিষয়টি তার জানা ছিলনা। তবে খোঁজ নিয়ে শিগগির এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’