বাউফলে সংখ্যালঘু পরিবারের চার নারীকে পিটিয়ে ও কুপিয়ে জখম করেছে দুবৃর্ত্তরা

0

pic-7কৃষ্ণ কর্মকার, বাউফল : পটুয়াখালীর বাউফলে এক সংখ্যালঘু পরিবারের চার নারীকে পিটিয়ে ও কুপিয়ে জখম করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গতকাল বুধবার সকাল ৮টার দিকে উপজেলার কনকদিয়া স্যার সলিমুল্লাহ স্কুল এন্ড কলেজ এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। গুরুতর আহত চারুবালা ও মলিনাকে বাউফল উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে ও সাথী, প্রিয়াংকা নামে দুই নারীকে প্রাথমিক ভাবে চিকিৎসা দিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। এ ঘটনায় সংখ্যালঘু পরিবারের পক্ষ থেকে বাউফল থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

অভিযোগ সুত্রে জানাগেছে, উপজেলার কনকদিয়া গ্রামের সংখ্যালঘু পরিবার দেবুতোষ সুত্রধরের সাথে পার্শ্ববর্তী মজিবর খাঁর সাথে দীর্ঘ দিন পর্যন্ত জমি-জমা নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। গতকাল বুধবার সকাল ৮টার দিকে মজিবর খাঁ ও তার লোকজন দেশি অ¯্র শস্ত্রে নিয়ে ওই সংখ্যালঘুর বাড়ির সিমানা বেড়া ভেঙ্গে ফেলে। এতে বাধাঁ দিতে গেলে চারুবালা সুত্রধর (৫০) কে বেধরক পিটিয়ে ও কুপিয়ে জখম করে মজিবর ও তার সাঙ্গপাঙ্গরা। এ সময় চারুবালাকে বাচাঁতে সাথী, প্রিয়াংকা ও মলিনা সুত্রধর এগিয়ে আসলে তাদেরকের পিটিয়ে আহত করা হয়।

দেবুতোষ সুত্রধর সাংবাদিকদের কাছে অভিযোগ করেন, মজিবর খাঁ একজন প্রতারক শ্রেণির লোক। তিনি বিভিন্ন সময়ে এলাকার মানুষের সাথে প্রতারনা করে আসছে।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত মজিবর খাঁ তার বিরুদ্ধে সকল অভিযোগ অস্বিকার করেন।

বাউফল থানার ওসি আ জা ম মাসুদুজ্জামান বলেন, অভিযোগ পেয়েছি, তদন্ত সাপেক্ষে ব্যাবস্থা নেওয়া হবে।